লকডাউন না করে লকডাউনের মত আচরণ চান মমতা, মন্ত্রিসভার প্রথম বৈঠকে আলোচ্য করোনা মোকাবিলা

এবারের মানুষের রায় উন্নয়ন, সম্প্রীতি ও সৌভ্রাতৃত্বের রায়। মন্ত্রিসভার শপথের পর নবান্ন সভাঘর থেকে বললেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। ফের একবার ধন্যবাদ জানালেন বাংলার মানুষকে। মুখ্যমন্ত্রী ঘোষণা করেন, চিফ হুইপ নির্মল ঘোষ, ডেপুটি চিফ হুইপ হবেন তাপস রায়। বিধানসভার ডেপুটি স্পিকার হচ্ছেন আশিস ব্যানার্জি। বিশেষ দায়িত্ব দেওয়া হবে অসীমা পাত্র এবং পার্থ ভৌমিককে। 

এদিন সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে করোনা মোকাবিলা নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, লকডাউন জারি করছি না। তাতে মানুষের খুব সমস্যা হয়। মানুষ খেতে পাবে না। কিন্তু আমাদের নিজেদের লকডাউনের মত আচরণ করতে হবে। যাতে করোনা সংক্রমণ ছড়ানো বন্ধ করা যায়। এজন্য বিভিন্ন সংগঠন এগিয়ে এসে রাজ্যের পাশে দাঁড়িয়েছে বলেও জানান মুখ্যমন্ত্রী। রেড রোডে ঈদের নামাজের জমায়েত বন্ধ ঘোষণার জন্য মুসলিম ধর্মগুরুদের ধন্যবাদ জানান মমতা। বলেন, দেখবেন সব জায়গায় যেন ৫০ জনের কম মানুষের জমায়েত হয়। 

রাজ্যের মানুষ এবং সংগঠনগুলোকে করোনা মোকাবিলায় অর্থ সাহায্য করার জন্যও আবেদন করেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, রাজ্যের সবাইকে ফ্রি টিকা দেবে তাঁর সরকার। বেসরকারি হাসপাতালগুলোকে ১ কোটি টিকা দেওয়া হবে বলেও নবান্ন সভাঘর থেকে জানান মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। পাশাপাশি কেন্দ্রের টিকা নীতি নিয়েও নতুন করে কটাক্ষ ছুঁড়ে দেন মমতা। বলেন, দেশে উৎপাদিত ৬৫% টিকা যদি সত্যিই বিদেশে রফতানি করা হয়ে যায় তাহলে টিকা কোথা থেকে আমদানি করা হবে সেটা কেন্দ্রীয় সরকার ঠিক করুক। অক্সিজেন, টিকা নিয়ে কেন্দ্রের পৃথক নীতিরও দাবি করেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী। 

এদিন মমতা ব্যানার্জি বলেন, সিনিয়ার বিধায়কদের বিভিন্ন কমিটির মাথায় বসানো হবে।   

Comments
Loading...