মমতা ব্যানার্জি: কোন চ্যানেলে কে এডিটর হবেন ঠিক করে দিচ্ছে মোদী-শাহের অফিস

সংবাদমাধ্যমের একাংশকে মোদী সরকার সরাসরি নিয়ন্ত্রণ করছে বলে অভিযোগ করেন বিরোধীরা। এবার এক ধাপ এগিয়ে বিস্ফোরক দাবি করলেন মমতা ব্যানার্জি। বললেন, প্রধানমন্ত্রী আর স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর অফিস থেকে ঠিক করে দেওয়া হচ্ছে, কোন চ্যানেলে কে এডিটর হবেন! বিজেপির পার্টি অফিস থেকে রোজ সকালে সংবাদমাধ্যমকে কী খবর করতে হবে তার নির্দেশিকা দেওয়া হচ্ছে। 

বিজেপির আমলে স্বাধীনতা হারিয়েছে সংবাদমাধ্যম। বিরোধীদের এই অভিযোগে নয়া মাত্রা যোগ করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। দেশের কিছু সংবাদমাধ্যমকে সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ করছে বিজেপি। এমনকী এখন সেই চ্যানেলে কে সম্পাদক হবেন অথবা কে চাকরি করবেন, সেটাও ঠিক করে দিচ্ছে প্রধানমন্ত্রী বা স্বরাষ্ট্র মন্ত্রীর দফতর, বলে অভিযোগ মমতার। এখানেই থামেননি মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, রোজ সকালে বিজেপির পার্টি অফিস থেকে চ্যানেলে চ্যানেলে নির্দেশ পাঠানো হচ্ছে, কী খবর করা যাবে আর কী যাবে না। মুখ্যমন্ত্রীর কথায়, যা বিজেপি চাইবে সেটাই খবর। বাকি সব বাদ। এটা কি মগের মুল্লুক চলছে? 

সংবাদমাধ্যম নিয়ন্ত্রণের জন্য বিজেপির সমালোচনা করার পাশাপাশি মুখ্যমন্ত্রীর হুঁশিয়ারি, যা খুশি করুক বিজেপি, বিনা যুদ্ধে ১ ইঞ্চি জমি ছাড়বে না বাংলার মানুষ। ভোটের সময় সব ইঞ্চি ইঞ্চিতে বুঝে নেওয়া হবে, বিজেপি যেন প্রস্তুত থাকে। মমতা ব্যানার্জি বলেন, ভোটের আগে অনেক কিছু করবে বিজেপি। জেলে পুরবে অনেককে। কিন্তু এই সব করে বাংলাকে গুজরাত বানানো যাবে না। 

নিজের রোজগারের কথা বলতে গিয়ে মমতা বলেন, আমি সরকারের পয়সায় বাঁচি না। পেনশন-বেতন, আমি কিছুই নিই না। কারণ আমি নিজে বই লিখি, ছবি আঁকি, গানের সিডি তৈরি করি। আমি একা মানুষ, তাতেই চলে যায়। তাই দুর্নীতির অভিযোগ করে লাভ নেই। তাঁর কথায়, আমি পার্টিকে কিছু দিলে আপনাদের আপত্তি কেন?

Comments
Loading...