ফের নাগরিকত্ব বিল, নোটবন্দি এবং জিএসটির সমালোচনায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

কেন্দ্রের নাগরিকত্ব বিল, নোটবন্দি এবং জিএসটির আবারও তীব্র সমালোচনা করলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সোমবার নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, নাগরিকত্ব একবারই হয়। দু’বার করে নাগরিকত্বর প্রমাণ চেয়ে মানুষকে বিদেশি প্রমাণ করার অপচেষ্টা চলছে। তিনি বলেন, যাঁরা এদেশে বংশ পরম্পরা রয়েছেন, তাঁদেরকে তাড়ানোর চক্রান্ত চলছে। মমতার কথায়, বাংলার মানুষের সেন্টিমেন্টে সুড়সুড়ি দিয়ে একে তাড়াব, ওকে তাড়াব বলে লাভ নেই। বাংলায় জাতি-ধর্ম-বর্ণ সবাই মিলেমিশে ছিল, আছে এবং থাকবে।
কেন্দ্রীয় সরকারের সমালোচনা করে মমতা বলেন, নির্বাচনের আগে নাগরিকত্ব বিল আসলে নির্বাচনী চমক। প্রসঙ্গত, নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল নিয়ে উত্তেজনা বাড়ছে অসম ও মিজোরামে। প্রথম থেকেই নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলের সমালোচনা করে এসেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।
নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামে রাজ্যের ক্রীড়াবিদদের সম্মান জ্ঞাপন অনুষ্ঠানে মোদী সরকারের নোটবন্দি ও জিএসটি প্রয়োগেরও নিন্দা করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর মতে ক্রীড়াক্ষেত্রে ক্লাবগুলি স্পনসরশিপ পাওয়া মুশকিল হয়ে গিয়েছে। তাঁর কথায়, স্পনসরশিপ নেওয়ার সময় কোনও কোম্পানি ‘সাদা’, নাকি ‘কালো’ তা বোঝা ক্রীড়াক্ষেত্রের কাজ নয়। পরে তদন্তকারী সংস্থার ভয়ে অনেকে সাহায্য নিতে ভয় পাচ্ছেন বলে অভিযোগ মুখ্যমন্ত্রীর। মানুষের মধ্যে ভয় ঢুকে গিয়েছে। যদি কোনও সংস্থা বা কোম্পানির বিশ্বাসযোগ্যতা নিয়ে সন্দেহ থাকে প্রথমে মানুষকে সতর্ক করা উচিত। পাশাপাশি, মুখ্যমন্ত্রীর অভিযোগ, ক্রীড়াক্ষেত্রে শুধু ‘ খেলো ইন্ডিয়া’ বলে, বা শুধুমাত্র চ্যাম্পিয়ন হলে শুভেচ্ছা জানিয়ে দায় সারলে চলে না। সরকারের উচিত ৩৬৫ দিন খেলোয়াড়দের পাশে থাকা।
মুখ্যমন্ত্রী দাবি করেন, তাঁর সরকার ক্ষমতায় আসার পরে ক্রীড়াক্ষেত্রে বাজেট ৭৩ কোটি টাকা থেকে বাড়িয়ে ৫৫১ কোটি টাকা করা হয়েছে। পাশাপাশি, রাজ্যের ২২১ টি কোচিং সেন্টারকে এক লক্ষ করে টাকা সাহায্যের কথা ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী।

Comments
Loading...