রাজস্থানে শচিন পাইলট, মধ্য প্রদেশে কমলনাথ? নাকি প্রবীণ গেহলট? মুখ্যমন্ত্রী নিয়ে কংগ্রেসের অন্দরে জটিলতা অব্যাহত

বিজেপিকে ধাক্কা দিয়ে ৩ রাজ্যে ক্ষমতা দখল করেও স্বস্তি নেই কংগ্রেসের। মধ্য প্রদেশ ও রাজস্থানে মুখ্যমন্ত্রীর কুর্সিতে কে বসবেন তা নিয়ে দ্বিধায় রাহুল গান্ধী।
মধ্যপ্রদেশে বিজেপির বিরুদ্ধে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই করেও ম্যাজিক নম্বর ছুঁতে পারেনি কংগ্রেস। শেষ পর্যন্ত মায়াবতীর বিএসপি এবং সমাজবাদী পার্টির সমর্থন পেয়ে সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জন করে। প্রবীণ অভিজ্ঞ নেতা কমলতনাথ এবং জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া দু’জনেই দাবিদার মুখ্যমন্ত্রী আসনের জন্য। সূত্রের খবর, কমলনাথ’কেই মুখ্যমন্ত্রীর পদে বসাতে চলেছে কংগ্রেস। তবে সিন্ধিয়াকে খুশি করতে তাঁকে উপমুখ্যমন্ত্রীর পদ দেওয়া হতে পারে বলে খবর। একই সমস্যা রাজস্থানেও। প্রবীণ ও অভিজ্ঞ অশোক গেহলট নাকি নবীণ ও জনপ্রিয় শচিন পাইলট মুখ্যমন্ত্রীর পদে বসবেন তা নিয়ে তৈরি হয়েছে জটিলতা।
বৃহস্পতিবার দ’জনই আলাদা আলাদাভাবে রাহুল গান্ধীর সঙ্গে দেখা করেছেন। তবে সূত্রের খবর, নবীণের ওপরই রাজস্থানে ভরসা রাখতে পারে কংগ্রেস। গেহলট ও পাইলট, দু’জনেই রাজস্থানের মাটিতে কংগ্রেসকে স্থাপন করতে নিরন্তর প্রচেষ্টা চালিয়েছেন। তাই কংগ্রেস নেতৃত্ব কাউকেই ‘বঞ্চিত’ করতে চাইছে না। তাই একজনকে রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী ও অন্যজনকে দিল্লিতে এনে জাতীয় রাজনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব দেওয়ার কথা ভেবেছে কংগ্রেস। বুধবার প্রায় ২ লক্ষ ৪০ হাজার কংগ্রেস কর্মীর মোবাইলে রাহুল গান্ধী এক অডিও বার্তায় মুখ্যমন্ত্রী সম্পর্কে তাঁদের মতামত জানতে চান। অধিকাংশ কর্মীরা তাঁদের মতামত পাঠিয়ে দিয়েছেন বলে কংগ্রেস সূত্রে খবর। এবার এই অডিও বার্তার ফলাফলের উপর দাঁড়িয়ে সিদ্ধান্ত নেবেন রাহুল।

Comments
Loading...