অপসারিত সিবিআই প্রধান অলোক ভার্মার পাশে দাঁড়িয়ে কেন্দ্রের সিদ্ধান্তকে সুপ্রিম কোর্টে চ্যালেঞ্জ করল কংগ্রেস

সিবিআই প্রধানের পদ থেকে অলোক ভার্মাকে অপসারণের বিরোধিতা করে এবার সুপ্রিম কোর্টে আবেদন করল কংগ্রেস। কংগ্রেসের অভিযোগ, যেভাবে অলোক ভার্মাকে সরানো হয়েছে, তা সম্পূর্ণ বেআইনি ও স্বৈরাচারী সিদ্ধান্ত। কেন্দ্রের এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে শনিবার সুপ্রিম কোর্টে আবেদন জানিয়ে লোকসভায় কংগ্রেসের নেতা মল্লিকার্জুন খাড়গে বলেন, পরিকল্পিতভাবে অলোক ভার্মাকে সরিয়ে দিয়েছে কেন্দ্র। নিজের আবেদনে খাড়গে সুপ্রিম কোর্টে জানিয়েছেন, সিবিআই ডিরেক্টরের মেয়াদ নির্দিষ্ট থাকে দু’বছর। তাঁকে বেছে নেয় সংশ্লিষ্ট একটি কমিটি। যে কমিটিতে থাকেন প্রধানমন্ত্রী, লোকসভার বিরোধী নেতা ও সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি। তাই কাউকে মেয়াদ শেষের আগে সিবিআই প্রধানের পদ থেকে সরানোর প্রয়োজন হলে, এই কমিটিতে আলোচনা করা প্রয়োজন। কিন্তু এক্ষেত্রে সেরকম আলোচনা হয়নি। খাড়গের দাবি, অলোক ভার্মাকে অপসারণের বিষয়ে তাঁর সঙ্গে আলোচনা তো দূরের কথা, তাঁকে কিছু জানায়নিও কেন্দ্র। সুপ্রিম কোর্টে আবেদনে লোকসভার বিরোধী নেতা জানিয়েছেন, প্রয়োজনে সুপ্রিম কোর্ট নির্দেশ দিয়ে কেন্দ্রের এই সিদ্ধান্ত বাতিল করে অলোক ভার্মাকে সিবিআই-এর মাথায় ফিরিয়ে আনুক।
উল্লেখ্য, উত্তরপ্রদেশের মাংস রফতানীকারি ব্যবসায়ী মইন কুরেশির বিরুদ্ধে বহু কোটি টাকার জালিয়তি ও হাওয়ালার মাধ্যমে বিদেশে অর্থ পাচারের যে অভিযোগ উঠেছে, তাতে নাম জড়িয়েছে সতীশ সানা নামে হায়দরাবাদের এক ব্যবসায়ীর। ঘটনার তদন্ত করছে ইডি ও সিবিআই। সম্প্রতি জানা যায়, তদন্তকারীদের সানা জানিয়েছেন যে, সিবিআই-এর চার্জশিট থেকে যাতে তিনি মুক্তি পান তার জন্য ২০১৭ সালের ডিসেম্বর থেকে দশ দফায় তিনি ২ কোটি টাকা ঘুষ দিয়েছেন সিবিআই-এর স্পেশাল ডিরেক্টর রাকেশ আস্থানাকে। সানার এই অভিযোগের পরই সিবিআই এফআইআর করে সংস্থার নম্বর টু আস্থানার বিরুদ্ধে।
নিজের বিরুদ্ধে এই এফআইআর-এর কথা জানতে পেরেই তৎকালীন সিবিআই প্রধান অলোক ভার্মার বিরুদ্ধে পালটা অভিযোগ আনেন আস্থানা। ক্যাবিনেট সেক্রেটারিকে চিঠি লিখে তিনি বলেন, তাঁর বিরুদ্ধে চক্রান্ত করছেন অলোক ভার্মা।
সিবিআই প্রধান ও স্পেশাল ডিরেক্টরের মধ্যে এই নজিরবিহীন দ্বন্দ্ব ঘিরে প্রশ্ন দেখা যায় সিবিআই-এর নিরপেক্ষতার নিয়ে। এই পরিস্থিতে সিবিআই-এর শীর্ষস্তরে এই অচলাবস্থা মেটাতে হস্তক্ষেপ করতে হয় খোদ প্রধানমন্ত্রীকে। ১৭ অক্টোবর সিবিআই প্রধানের পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হয় অলোক ভার্মাকে। সরানো হয় রাকেশ আস্থানাকেও। কেন্দ্রের এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টে আবেদন করেন অলোক ভার্মা। সেই মামলায় দু’সপ্তাহের মধ্যে সেন্ট্রাল ভিজিলেন্স কমিশনকে রিপোর্ট দিতে বলেছে শীর্ষ আদালত। এবার সুপ্রিম কোর্টে অলোক ভার্মার পাশে দাঁড়াল কংগ্রেস।

Comments
Loading...