বিশ্ব বাণিজ্যে করোনার প্রভাব হবে সুদূরপ্রসারী, ২০০৮ আর্থিক মন্দার মতোই, বলছেন প্রাক্তন ইনফোসিস কর্তা ভি বালাকৃষ্ণণ

অর্থনীতিতে করোনাভাইরাসের প্রভাব ঠিক ২০০৮ সালের অর্থনৈতিক মন্দার মতোই। কিন্তু এবার কেউ বলতে পারছে না, ঠিক কতদিন পর্যন্ত এই করোনা-মন্দা জারি থাকবে। বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস আতঙ্কে বিশ্ববাণিজ্যে যে সংকটজনক পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে, তা নিয়ে তীব্র উদ্বেগ প্রকাশ করলেন ইনফোসিসের প্রাক্তন সিএফও ভি বালাকৃষ্ণণ।
দেশের তাবড় আইটি সংস্থাগুলিকে নির্দেশ দেওয়া হচ্ছে, খুব জরুরি না হলে কোনও কর্মীকেই যেন এখন বিদেশে পাঠানো না হয়। আমদানি থেকে রফতানি, দেশের তথ্যপ্রযুক্তি শিল্প থেকে তেল আমদানি, রিটেল থেকে  এয়ারলাইন্স সব শিল্পেই কার্যত ধস নামছে করোনাভাইরাসের আতঙ্কে। বিশ্বজুড়ে এর প্রভাব নেতিবাচক হবে বলে উদ্বেগ প্রকাশ করলেন দেশের অন্যতম তথপ্রযুক্তি সংস্থা ইনফোসিসের প্রাক্তন চিফ ফিনান্সিয়াল অফিসার (সিএফও) ভি বালাকৃষ্ণণ।
তাঁর কথায়, করোনাভাইরাসের প্রভাবে যে আর্থিক মন্দা শুরু হয়েছে তা ঠিক ২০০৮ সালের মতো। তবে দেশের ব্যাঙ্কিং সেক্টরের সৌজন্যে কয়েক মাসের মধ্যে সেই মন্দার প্রভাব কাটানো গিয়েছিল। কিন্তু বর্তমান পরিস্থিতিতে অর্থনৈতিক দুরবস্থা কবে কাটবে তা হলফ করে বলা যাচ্ছে না। বালাকৃষ্ণণের কথায়, এয়ারলাইন্স থেকে খুচরো ব্যবসা, তথ্যপ্রযুক্তি থেকে তেল ও গ্যাস শিল্প এমনকী অর্থনৈতিক ক্ষেত্রও প্রবল বিপর্যয়ের মুখে। এর নেতিবাচক প্রভাব আগামী এক বছর পর আরও ভালোভাবে বোঝা যাবে বলে জানান প্রাক্তন ইনফোসিস কর্তা। তিনি আরও জানান, বিশ্ববাজারে আমেরিকা, ইউরোপ, জাপান প্রত্যেকেই চূড়ান্ত অর্থনৈতিক মন্দার সাক্ষী হয়েছে। মানুষের খরচে এর বিশাল প্রভাব পড়বে। আর দেশের তথ্য প্রযুক্তি শিল্প বড় চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হতে চলেছে।

Comments
Loading...