পরিযায়ীদের বাড়িতে রেশন পৌঁছবে রাজ্য, লাগবে না রেশন কার্ড, কুপন দিয়ে ৬০ লক্ষ মানুষকে চাল-ডাল দেওয়ার নির্দেশ মুখ্যমন্ত্রীর

ভিন রাজ্য থেকে ঘরে ফেরা শ্রমিকদের বাস, ট্রেনের ভাড়া দিয়েছে রাজ্য সরকার। এবার প্রতিটি ঘরে ফেরা শ্রমিকের পরিবারের হাতে বিনা রেশন কার্ডেও খাদ্য তুলে দিচ্ছে নবান্ন। জুন ও জুলাই মাসের জন্য মাথা পিছু মাসিক পাঁচ কিলো চাল ও এক কিলো ডাল শ্রমিকদের দেওয়া হচ্ছে। এজন্য আলাদা কুপন ইস্যু করা হবে। লাগবে না রেশন কার্ড।

পরিযায়ী শ্রমিকরা ছাড়াও এ রাজ্যে বসবাসকারী ভিন রাজ্যের বহু মানুষ, যাঁরা সরকারি গণ বণ্টন পরিষেবার আওতায় নেই। নেই রেশন কার্ডও। তাঁদেরও এই পরিষেবায় খাদ্য দেবে রাজ্য সরকার।

গত ৩ জুন প্রশাসনিক ভিডিও বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি ঘোষণা করেন, যে পরিযায়ী শ্রমিকদের রেশন কার্ড নেই তাদের যেন কুপনের মাধ্যমে খাদ্যশস্য বিলি করা হয়। মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশ মতো জেলায় জেলায় শুরু হয়েছে বাইরে থেকে আসা মানুষদের কুপনের মাধ্যমে রেশন বিলি।

খাদ্য দফতর সূত্রে খবর, এমন ৬০ লক্ষ ১৮ হাজার ৩৭৭ জন উপভোক্তার জন্য রেশন বরাদ্দ করা হয়েছে। যে পরিযায়ী শ্রমিকরা কোয়ারেন্টিনে রয়েছেন, তাঁদের বাড়ির দোরগোড়ায় মাথাপিছু ৫ কেজি চাল ও ১ কেজি করে ডাল পৌঁছে দেবে সরকার।

লকডাউনে বিভিন্ন রাজ্যে আটকে পড়া পরিযায়ী শ্রমিকরা গত কয়েকদিন ধরে বাসে, ট্রেনে করে দফায় দফায় ঘরে ফিরেছেন। উত্তরবঙ্গের আলিপুরদুয়ার, নিউ কোচবিহার থেকে দক্ষিণের সাঁতরাগাছি, ডানকুনি, পুরুলিয়া স্টেশনে এসেছে একাধিক শ্রমিক স্পেশাল ট্রেন। স্টেশনে তাঁদের স্বাস্থ্য পরীক্ষার পর সরকারি বাসে চাপিয়ে নির্দিষ্ট গ্রামে পৌঁছেও দিচ্ছে পরিবহণ দফতর। কিন্তু ওই শ্রমিকদের একটা বড় অংশের সঙ্গেই রেশন কার্ড নেই। তাই প্রতিবেশীরা যখন রেশন থেকে বিনামূল্যে চাল-আটা পাচ্ছেন তখন সদ্য পাড়ায় ফেরা এই পরিযায়ী শ্রমিকরা কার্যত নিরন্ন হওয়ার উপক্রম।

সামগ্রিক পরিস্থিতি আলোচনা করে মুখ্যমন্ত্রী পরিযায়ীদের ‘ফুড কুপন’ এর মাধ্যমে খাদ্য দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন এবং তা দ্রুত বণ্টন করতে নির্দেশ দেন খাদ্য দফতরকে। পরিযায়ী শ্রমিকদের পরিবারের সদস্য মিলিয়ে প্রায় ৫০ লাখ মানুষকে নতুন ফুড কুপন বিলির সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এছাড়া যে পরিযায়ী শ্রমিকরা আন্তঃরাজ্য সীমানা, বিভিন্ন রেল স্টেশন, বাস স্ট্যান্ডে ফিরেছেন বা ফিরছেন, তাঁদের তালিকা জেলা প্রশাসন ও পুলিশের কাছে রয়েছে। সেই তালিকা ধরে এগোবে কাজ।

সূত্রের খবর, রবিবার পর্যন্ত বিভিন্ন রাজ্য থেকে শ্রমিক স্পেশাল ট্রেনে আসা ১.৩৮ লক্ষ পরিযায়ী শ্রমিক কোয়ারেন্টিনে আছেন। এছাড়া গাড়ি বা ট্রেনে করে আসা আরও ১.৫৪ লক্ষ মানুষ রয়েছেন হোম কোয়ারেন্টিনে। কোয়ারেন্টাইনে থাকার মেয়াদ শেষ হয়েছে ১.৮২ লক্ষ মানুষের। তাদের প্রত্যেকের বাড়ি বাড়ি বিনামূল্যে রেশন পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে। এই কাজে সাহায্য করছেন সেল্ফ-হেল্প গ্রুপের কর্মীরা। তাই যে পরিযায়ী শ্রমিকদের কাছে রেশন কার্ড নেই স্থানীয় প্রশাসন দফতরে গিয়ে তাঁরা কুপনের জন্য আবেদন করবেন। সেই মতো কুপন ইস্যু করে তাঁদের বাড়িতে পৌঁছে দেওয়া হবে বিনামূল্যে রেশন।

Comments
Loading...