৯১৩৭০৯১৩৭০ নম্বরে ২৪ ঘন্টায় ১ লক্ষ ফোন, www.didikebolo.com এ ৫০ হাজার অভিযোগ, একদিনেই ব্যাপক সাড়া তৃণমূলের নতুন ক্যাম্পেনে

২৪ ঘন্টা পেরোতে না পেরোতেই সুপারহিট মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের চালু করা নতুন মোড়কের রাজনৈতিক ক্যাম্পেন।
‘দিদি কে বলো’ ক্যাম্পেন চালুর ২৪ ঘন্টার মধ্যেই ৯১৩৭০৯১৩৭০ নম্বরে ফোন করে অভিযোগ এবং সমস্যার কথা জানালেন ১ লক্ষেরও বেশি মানুষ। শুধু তাই নয় www.didikebolo.com ওয়েবসাইটে নিজের বক্তব্য নথিবদ্ধ করলেন ৫০ হাজারেরও বেশি মানুষ। একদিনের মধ্যে এই ক্যাম্পেন নিয়ে সাধারণ মানুষের ব্যাপক উৎসাহ, উদ্দীপনা দেখে রীতিমতো খুশি তৃণমূলের পলিটিকাল স্ট্র্যাটেজিস্ট প্রশান্ত কিশোরও। যত দিন যাবে ততই এই প্রচার অভিযান ইতিবাচক সাড়া ফেলবে বলে মনে করছেন তৃণমূল নেতৃত্ব।
সোমবারই ‘দিদি কে বলো’ ক্যাম্পেন শুরু করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। জানিয়েছেন, যে কোনও সাধারণ মানুষ ফোন করে বা ওয়েবসাইটে সরাসরি তাঁকে জানাতে পারবেন অভিযোগ, সমস্যার কথা। আর এই ক্যাম্পেন শুরু হওয়ার পরই স্পষ্ট হয়েছে, ২০২১ বিধানসভা নির্বাচনের কথা মাথায় রেখে কার্যত দলের খোলনলচে পালটে ফেলতে চাইছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।
লোকসভা ভোটে ধাক্কার পর কেটেছে মাত্র দু’মাস। রাজ্যে রাজনৈতিক সমীকরণে বদলের সঙ্গে সঙ্গে অনেক পরিবর্তন হয়েছে রাজ্যের শাসক দলেরও। দলের পলিটিকাল স্ট্র্যাটেজিস্ট হিসেবে কাজ শুরু করেছে প্রশান্ত কিশোর। পাশাপাশি, দলের সংগঠনে তো বটেই প্রশাসন থেকে মন্ত্রিসভায় একাধিক বদল বা বদলের ইঙ্গিত মিলতে শুরু করেছে। তারই অঙ্গ হিসেবে রাজ্যজুড়ে নিবিড় জনসংযোগের লক্ষ্যে সোমবার নজরুল মঞ্চে ‘দিদি কে বলো’ কার্যক্রমের সূচনা করেছেন তৃণমূল নেত্রী।
সোমবার দুপুর থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হয়েছে ‘দিদি কে বলো’ ক্যাম্পেন। আর তার একদিন পেরোতে না পেরোতেই এই ফেসবুক পেজে ৩৮ হাজারেরও বেশি লাইক। ফলো করছেন প্রায় ৩৯ হাজার মানুষ। আগামী দিনে তা আরও দ্রুত বাড়বে বলে মনে করছেন তৃণমূলের অনলাইন বিশেষজ্ঞরা। মঙ্গলবার সেই ফেসবুক পেজে, এই ক্যাম্পেনের সাফল্য কামনা করে যে সমস্ত নেতা-নেত্রীরা ট্যুইট করেছেন, তার একটি কোলাজও তুলে ধরা হয়েছে। সেখানে দেখা যাচ্ছে, অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় থেকে কাকলি ঘোষ দস্তিদার, মিমি চক্রবর্তী থেকে নুসরত জাহান, মৌসম নূর, সকলেই ‘দিদি কে বলো’ ক্যাম্পেনের ছবি শেয়ার করেছেন নিজেদের পেজে।

জানা গিয়েছে, মঙ্গলবার দুপুর পর্যন্ত ৯১৩৭০ ৯১৩৭০ নম্বরে ফোন করে অভিযোগ বা মতামত জানিয়েছেন ১ লক্ষেরও বেশি মানুষ। প্রতিটি বক্তব্য নিয়ে কাজ করছেন প্রশান্ত কিশোরের দলের সদ্যরা। পাশাপাশি ‘দিদি কে বলো’র ওয়েবসাইটেও জমা পড়েছে ৫০ হাজারের বেশি অভিযোগ বা সমস্যার কথা। এই ওয়েবসাইটে বাংলা ও ইংরেজি ভাষায় অভিযোগ জানানো যাবে। নাম, ঠিকানার পাশাপাশি থাকছে আপনি কোনও রাজনৈতিক দলের সদস্য কিনা সেই কলাম। এবং থাকছে আপনি কি ‘দিদি কে বলো’ কর্মসূচির দূত হতে চান, এই প্রশ্নও। প্রতিদিন সকাল ৯ টা থেকে বিকেল ৬ টা পর্যন্ত খোলা থাকছে টেলিফোন লাইন।

Comments
Loading...