মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ভিসার মেয়াদ শেষ হওয়া ‘অবৈধ’ বসবাসকারীদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি ভারতীয়, জানাল ট্রাম্প প্রশাসন

মার্কিন রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রশাসনের নজরে ফের ভারতীয় নাগরিকরা। এর আগে কাজের জন্য ভারতীয়রা ভিসা নিয়ে মার্কিন মুলকে ঘাঁটি গাঁড়ায়, মার্কিনদের কাজ সুযোগ কমছে বলে অভিযোগ করেছিল ট্রাম্প প্রশাসন। ভারতীয়দের যথেচ্ছ ভিসা দেওয়ার উপরও রাশ টানতে চাইছেন মার্কিন রাষ্ট্রপতি। এবার মার্কিন প্রশাসনের হোমল্যান্ড সিকিউরিটি বিভাগ তাদের এক রিপোর্টে জানাল, ভিসার বৈধতা শেষ হলেও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে থেকে গিয়েছেন এমন বিদেশি নাগরিকদের মধ্যে ভারতীয়দের সংখ্যাই সর্বাপেক্ষা বেশি।
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে কর্মসূত্রে কারা আসছেন, আবার কাজের শেষে নিজের দেশে ফিরে যাচ্ছেন কিংবা ভিসার মেয়াদ উত্তীর্ণ হলেও সেখানে থেকে যাচ্ছেন, এই সব বিষয় নিয়ে প্রতি বছর একটি রিপোর্ট তৈরি করে সে দেশের সেন্টার ফর ইমিগ্রেশন স্টাডিস নামে একটি সংস্থা। সম্প্রতি তারাই নিজেদের রিপোর্ট হোমল্যান্ড সিকিউরিটি বিভাগকে পাঠিয়েছে। রিপোর্টে বলা হয়েছে, কর্মসূত্রে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে এসে ভিসার বৈধতা শেষ হয়ে যাওয়া সত্ত্বেও সে দেশে থেকে গেছেন এমন ভারতীয়ের সংখ্যা ২০১৬ সালের তুলনায় ২০১৭ সালে প্রায় ১৯ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে। ২০১৬ সালে সংখ্যাটা যেখানে ছিল ৮০৬১, সেখানে ২০১৭ সালে তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৯,৫৬৮ তে। রিপোর্টে এও বলা হয়েছে, কাজ ছাড়াও প্রতি বছর পড়াশোনার জন্য বহু বিদেশি পড়ুয়া শিক্ষার্থী ভিসা নিয়ে আমেরিকায় আসে। শিক্ষার্থী ভিসা শেষ হয়ে গেলেও মার্কিন মুলুকে থেকে যাওয়া ভারতীয় পড়ুয়াদের সংখ্যাটাও বিপুল বলে দাবি মার্কিন প্রশাসনের। রিপোর্ট অনুযায়ী, শিক্ষার্থী ভিসার বৈধতা শেষেও এই মুহূর্তে আমেরিকায় রয়েছেন এরকম পড়ুয়াদের মধ্যে প্রায় ৪০ শতাংশই (২০১৭ সালের হিসেব অনুযায়ী) ভারত, চিন, দক্ষিণ কোরিয়া ও সৌদি আরবের বাসিন্দা। এই রিপোর্ট অনুযায়ী, বর্তমানে প্রায় ৪৪০০ জন ভারতীয় পড়ুইয়ারই শিক্ষার্থী ভিসার মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে। যদিও রিপোর্ট অনুযায়ী, ভিসার বৈধতা শেষেও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন প্রান্তে থেকে গিয়েছেন এমন বিদেশি নাগরিকদের সংখ্যা ২০১৭ সালে আগের বছরের তুলনায় ৫ শতাংশ কমেছে। কিন্তু ভারতীয়দের ক্ষেত্রে সংখ্যাটা বেড়েছে।
ট্রাম্প প্রশাসনের এই রিপোর্ট চিন্তার ভাঁজ ফেলেছে সে দেশে বসবাসকারী বহু ভারতীয়ের কপালে। বিদেশি এবং অনুপ্রবেশকারীরা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে স্থানীয়দের কর্মক্ষেত্রে জায়গা কেড়ে নিচ্ছে, এই অভিযোগ এর আগেও বারবার করেছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। এবার সে দেশে বসবাসকারী বিদেশিদের মধ্যে অবৈধ নাগরিকদের যে তালিকা সে দেশের প্রশাসন তৈরি করেছে তা প্রকাশ্য আসতেই নতুন বিতর্ক শুরু হয়েছে। যদিও সমালোচকদের মতে, এই তথ্য বাড়িয়ে দেখানো হয়েছে, এখনই এর থেকে আশঙ্কার কিছু হয়নি। আসলে এদের শরনার্থী বা বেআইনি বসবাসকারীর তকমা দিয়ে মার্কিন প্রশাসন দেশ থেকে তাড়াতে চাইছে বলেই এত সব বলা হচ্ছে বলে বিরোধীদের অভিযোগ।

Comments
Loading...