প্রধানমন্ত্রী বলেছিলেন দো গজ কি দুরি। করোনা আবহে সোশ্যাল ডিসট্যান্সিংয়ের অলিখিত নিয়ম হয়ে গিয়েছে পরস্পরের সঙ্গে ২ গজ বা ৬ ফুটের দুরত্ব। কিন্তু মার্কিন মুলুকের সাম্প্রতিক গবেষণায় বড়সড় প্রশ্নের মুখে সেই নীতি।

ঠান্ডা ও আর্দ্র অঞ্চলে ছয় মিটার পর্যন্ত ছড়াতে পারে ড্রপলেট! এমনই দাবি করলেন আমেরিকার ইউনিভার্সিটি অফ ক্যালিফোর্নিয়ার গবেষকরা। তাঁরা জানাচ্ছেন, নির্দিষ্ট পরিবেশ ও আবহাওয়ায় করোনাভাইরাসের বিস্তার হতে পারে ২০ ফুট পর্যন্ত।

আগের সব সমীক্ষা বিচার করে গবেষকরা বলছেন, হাঁচি, কাশি ছাড়াও স্বাভাবিক কথোপকথনের মাধ্যমেও ৪০ হাজার ড্রপলেট আমাদের মুখ থেকে বেরোয়। যা সেকেন্ডে কয়েক মিটার থেকে একশো মিটারের বেশি ছড়িয়ে পড়ার শক্তি রাখে। করোনা নিয়ে আগের সমস্ত গবেষণা থেকে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এই ড্রপলেটের এরোডায়নামিক্স ও পরিবেশের সঙ্গে তাদের তাপ এবং ভর বিনিময় প্রক্রিয়ার দ্বারা সংক্রমণের পাল্লা নির্ধারণ হতে পারে। শুধু তাই নয়, গাণিতিক মডেলের মাধ্যমে বিজ্ঞানীরা বিভিন্ন তাপমাত্রা, আর্দ্রতা এবং বায়ু প্রবাহের অবস্থায় ড্রপলেটের বাষ্পীভবন, তাপ স্থানান্তর এবং গতি নিয়ে পরীক্ষা চালিয়েছেন। তাঁরা দেখেছেন, ড্রপলেটের মাধ্যমে কোভিড-১৯ এর সংক্রমণ স্বল্প দূরত্ব থেকে বড় দূরত্বে অ্যারোসল এক্সপোজারে বিভক্ত। বিজ্ঞানীদের বিশ্লেষণ অনুযায়ী, যে পথে ড্রপলেট ছড়ায় সেখানকার আবহাওয়ার অবস্থার ভিত্তিতে তার গতি সব সময় এক হয় না। কম তাপমাত্রা এবং উচ্চ আর্দ্রতা ড্রপলেট সংক্রমণকে সহজতর করে। আর উচ্চ তাপমাত্রা এবং কম আর্দ্রতা ছোট ড্রপলেটকে অ্যারোসোল-কণায় রূপান্তরিত করতে সাহায্য করে। যা করোনাভাইরাসকে আরও বেশি দুরত্বে পৌঁছে দেয়।

গবেষণায় বলা হয়েছে, সেন্টার ফর ডিজিস কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশন (CDC) যে সর্বোচ্চ ৬ ফুট সোশ্যাল ডিসট্যান্সিং-এর কথা বলেছে তা যথাযথ নয়। বিভিন্ন পরিবেশে করোনা ড্রপলেটের সংক্রমণ ভিন্ন হবে। যেমন ঠান্ডা ও আর্দ্র আবহাওয়ায় ৬ মিটার বা ১৯.৭ ফুট পর্যন্ত ছড়াতে পারে এই ড্রপলেট।

তাঁরা আরও জানান, উত্তর গোলার্ধের গ্রীষ্মপ্রধান এলাকায় এখনই ভাইরাসের প্রকোপ কমবে না। অ্যারোজল সংক্রমণের মাত্রা বিভিন্ন দেশে বাড়তে পারে।

মাস্ক পরলে এবং সোশ্যাল ডিসট্যান্সিং এর মাধ্যমে এই সংক্রমণ অনেকটাই এড়ানো যায় বলে মত ইউনিভার্সিটি অফ ক্যালিফোর্নিয়ার গবেষকদের। তবে গবেষণার সীমাবদ্ধতা নিয়ে বিজ্ঞানীরা জানান, বিভিন্ন আবহাওয়ার ভাইরাস কতক্ষণ বেঁচে থাকতে পারে, সে বিষয়টি এখনও অজানা। মোটের উপর, বিভিন্ন আবহাওয়ায় SARS-CoV-2 এর সংক্রমণ মাত্রা এখনও জানা যায়নি বলে উল্লেখ করা হয় এই সমীক্ষায়।

 

ধারাবাহিকভাবে পাশে থাকার জন্য The Bengal Story র পাঠকদের ধন্যবাদ। আমরা যে ধরনের খবর করি, তা আরও ভালোভাবে করতে আপনাদের সাহায্য আমাদের উৎসাহিত করবে।

Login Support us

You may also like

Nepal Ram Demand
WHO Warns About Coronavirus