এগিয়ে বাংলা: কেন্দ্রের তরফে সেরার শিরোপা পেল ‘ই- আবগারি’ প্রকল্প, উচ্ছ্বসিত মুখ্যমন্ত্রী

ফের কেন্দ্রের তরফে সেরার শিরোপা পেল রাজ্য সরকার। উন্নত প্রযুক্তির মাধ্যমে আরও স্বচ্ছভাবে আবগারি দফতরের কাজ সম্পন্ন করার জন্য কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে পুরস্কৃত হল বাংলার এক্সাইজ ডিরেক্টরেটের প্রকল্প ‘ই- আবগারি’। খুন কম সময়ের মধ্যে অর্থ দফতরের ‘ই-গভর্ন্যান্স’-এর সাফল্যের স্বীকৃতি হিসেবে কেন্দ্রের ‘ডিজিটাল ইন্ডিয়া অ্যাওয়ার্ড ২০২০’ পাচ্ছে মমতার সরকার। আর শনিবার সে খবর নিজেই ট্যুইট করে জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি।
ডিজিটাল যুগে যুগে তাল মিলিয়ে চলার পক্ষপাতী রাজ্য সরকার।মুখ্যমন্ত্রীর উদ্যোগে রাজ্য সরকারের অধিকাংশ দফতর এখন অনলাইন প্ল্যাটফর্মে সক্রিয়। আর লম্বা লাইনে দাঁড়িয়ে অপেক্ষা নয়, ‘ই-গভর্ন্যান্স’-এর মাধ্যমে যাবতীয় সরকারি কাজ করা যাচ্ছে। নেওয়া যাচ্ছে সরকারি পরিষেবা।
এই প্রেক্ষিতে ‘আদর্শ এবং উদ্ভাবনী উদ্যোগ’ হিসেবে অর্থ দফতরের অধীনস্থ এক্সাইজ ডিরেক্টরেটের ‘ই-আবগারি’ পাচ্ছে কেন্দ্রের পুরস্কার। ট্যুইটারে মুখ্যমন্ত্রীর দাবি, ডিরেক্টরেটের কাজের ধারাই আমূল বদলে দিয়েছে এই অনলাইন পরিষেবা। ট্যুইটারে তিনি লিখেছেন, এই উদ্যোগের ফলে দক্ষ হাতে কাজ এবং স্বচ্ছতার পাশাপাশি রাজস্ব আদায়ও সুনিশ্চিত করা গিয়েছে। ই-আবগারি তাই দেশের সেরা প্রকল্প হিসেবে বিবেচিত হয়েছে। দেশের আরও ৭ টি রাজ্য বাংলার এই মডেলকে অনুসরণ করেছে বলে জানান তিনি।
এই প্রকল্পের সুবিধার কথা জানাতে গিয়ে মুখ্যমন্ত্রী ট্যুইটে আরও লেখেন, এতে রাজ্যের রাজস্ব আয়ও অনেকটা বৃদ্ধি পেয়েছে। স্বচ্ছতা, দ্রুততা বজায় রেখে ‘ই-আবগারি’ সবদিক থেকেই যে উৎকর্ষ, তা স্পষ্ট হয়ে গেল কেন্দ্রের এই পুরস্কারে। খোদ কেন্দ্রই দেশের বিভিন্ন ডিজিটাল প্রকল্পের মধ্যে থেকে বেছে নিয়েছে বাংলার ‘ই-আবগারি’কে। সরকারের এই উদ্যোগে শামিল হওয়ার জন্য মুখ্যমন্ত্রী বাংলার মানুষকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন।
আগামী ৩০ ডিসেম্বর রাষ্ট্রপতির হাত থেকে ‘ডিজিটাল ইন্ডিয়া অ্যাওয়ার্ড – ২০২০’ গ্রহণ করবেন বাংলার প্রতিনিধিরা। এই প্রকল্পের সঙ্গে যুক্ত গোটা টিমকে অভিনন্দন জানিয়েছেন মমতা।
এদিকে রাজ্যের তথ্য-প্রযুক্তি দফতরের মুকুটেও যুক্ত হয়েছে নতুন পালক। ডেটা সিকিউরিটি কাউন্সিল অব ইন্ডিয়ার (ডিএসসিআই) এক্সিলেন্স অ্যাওয়ার্ড ২০২০-তে জয়ী হয়েছে সংশ্লিষ্ট দফতর অধীনস্থ ‘সাইবার সিকিউরিটি সেন্টার অব এক্সিলেন্স’। ‘রেইজিং সিকিউরিটি অ্যাওয়ারনেস’ বা সাইবার সিকিউরিটি বিষয়ক সচেতনতা গড়ে তোলা বিভাগে সেরার শিরোপা পেয়েছে তারা।

Comments
Loading...