স্কুল খুললেও বন্ধই কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়, সিদ্ধান্ত উপাচার্যদের বৈঠকে

স্বাস্থ্য বিধি মেনে সরস্বতী পুজো হতে পারে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী

১২ ফেব্র্রুয়ারি থেকে রাজ্যের সমস্ত স্কুলে নবম থেকে দ্বাদশ শ্রেণী পর্যন্ত ক্লাস চালু করার কথা জানিয়েছিলেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চ্যাটার্জি। স্কুল খুললেও কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় এখনই খুলছে না বলে জানালেন তিনি। তবে স্বাস্থ্য বিধি মেনে সরস্বতী পুজো হতে পারে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী।

এদিন কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যদের সঙ্গে বৈঠকের পরে বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। কলেজগুলিতে রাজ্য ছাড়াও ভিনরাজ্য থেকে বহু পড়ুয়া পড়তে আসেন। তাঁরা সাধারণত হস্টেলে বা মেসে থাকেন। সেখানে স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলা কার্যত অসম্ভব। একথা মাথায় রেখে আপাতত বন্ধই থাকছে কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়। আগের মতোই অনলাইনে ক্লাস চলবে। কলেজের পরীক্ষাও অনলাইনে হবে। ক্লাস বন্ধ থাকলেও গবেষকদের জন্য ল্যাব খোলা থাকবে বলে জানা যাচ্ছে।

[আরও পড়ুন- ব্রাত্য বসু: আমরা অপেক্ষা করছি, অমিত শাহ এসে মতুয়াদের সিএএ নিয়ে কী বলেন জানতে]

আনলক পর্বে সেপ্টেম্বর থেকে অনলাইনে ক্লাস শুরু হয়েছে। পরীক্ষাও নেওয়া হয়েছে অনলাইনে। এমনকি স্নাতক স্তরের পরীক্ষাও ‘ওপেন বুক’ পদ্ধতিতে নেওয়া হয়। কলেজ বিশ্ববিদ্যালয় গুলির জন্য সেই একই পদ্ধতি লাগু থাকবে মার্চ পর্যন্ত।
বিশ্ববিদ্যালয় না খোলার সিদ্ধান্তে খুশি নয় পড়ুয়াদের একাংশ। অনলাইনে ক্লাস হলেও কলেজ বন্ধ থাকায় প্র্যাকটিকাল ক্লাসগুলির ক্ষেত্রে সমস্যা দেখা দিচ্ছে বলে জানিয়েছে পড়ুয়াদের কেউ কেউ।

Comments
Loading...