আশঙ্কাজনক দুর্ঘটনাগ্রস্ত উন্নাওয়ের তরুণী, বিজেপি বিধায়ক কুলদীপ সহ ১০ জনের নামে খুনের মামলা দায়ের পুলিশের

উত্তর প্রদেশের রায়বরেলিতে উন্নাওয়ের নির্যাতিতার গাড়িতে ট্রাকের ধাক্কার ঘটনায় বিজেপি বিধায়ক কুলদীপ সিংহ সেঙ্গারের বিরুদ্ধে এফআইআর। রবিবার রায়বরেলি জেলে নির্যাতিতার কাকার সঙ্গে দেখা করতে যাওয়ার পথে তাঁদের গাড়িতে মুখোমুখি ধাক্কা মারে একটি বেপরোয়া ট্রাক। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় নির্যাতিতা তরুণীর কাকিমা এবং মাসির। গুরুতর জখম হন ওই নির্যাতিতা ও তাঁর আইনজীবী। একে জেলবন্দি বিজেপি বিধায়কের ষড়যন্ত্র বলে অভিযোগ করেন নির্যাতিতার মা।
সোমবার রায়বেরিলির গুরুবক্সগঞ্জ থানায় এফআইআর দায়ের করে পুলিশ। যেখানে কুলদীপ সেঙ্গারের বিরুদ্ধে ৩০২ ধারায় খুন, ৩০৭ ধারায় খুনের চেষ্টা এবং ৫০৬ ধারায় অপরাধমূলক ষড়যন্ত্রের অভিযোগে মামলা দায়ের হয়। বিজেপি বিধায়ক ও তাঁর ভাই ছাড়াও মোট ১০ জনের নাম রয়েছে ওই এফআইআরে। পাশাপাশি, আরও ১৫ থেকে ২০ জন অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তির নাম ওই এফআইআরে উল্লেখ করা হয়েছে বলে খবর। উত্তর প্রদেশের মুখ্য সচিব জানান, এই ঘটনায় সিবিআই তদন্তেরও সুপারিশ করা হচ্ছে।
পাশাপাশি, যে ৩ জন সশস্ত্র নিরাপত্তারক্ষীর ২৪ ঘণ্টা তরুণীর সঙ্গে থাকার কথা, তাঁরা দুর্ঘটনার দিন ছিলেন না। উন্নাওয়ের পুলিশ সুপার এম পি ভার্মা জানান, কেন ওই নিরাপত্তারক্ষীরা উপস্থিত ছিলেন না তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

এদিকে বর্তমানে আশঙ্কাজনক অবস্থায় লখনউয়ের কিং জর্জেস মেডিক্যাল ইউনিভার্সিটিতে ভর্তি তরুণী। তাঁকে দেখতে যান দিল্লি মহিলা কমিশনের চেয়ারপার্সন স্বাতী মালিওয়াল। স্বাতী দাবি করেন, তরুণীর শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল নয়, তাই তাঁকে এয়ার লিফট করে দিল্লির হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হোক।

এই ঘটনা নিয়ে সোমবার উত্তাল হয়ে ওঠে রাজ্যসভা। বিরোধীরা ঘটনার সঠিক তদন্তের দাবি জানান। রাজ্যসভার চেয়ারম্যান বেঙ্কাইয়া নাইডু এ বিষয়ে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে বিশেষ গুরুত্ব দিতে বলেন। এরপরেও রাজ্যসভায় উত্তাল পরিস্থিতির জেরে অধিবেশন মুলতুবি করে দেওয়া হয়।

Comments
Loading...