পার্থ চট্টোপাধ্যায় না জেনেই বিবৃতি দিয়েছেন, যাদবপুর কাণ্ডে তৃণমূলকে পাল্টা জবাব রাজ্যপাল ধানকরের

যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় কাণ্ড নিয়ে চূড়ান্ত সংঘাত তৈরি হল রাজ্যপাল ও রাজ্যের শাসক দলের মধ্যে। বৃহস্পতিবার যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়কে হেনস্থা ও রাজ্যপালের তাঁকে উদ্ধার করতে যাওয়ার সমালোচনা করে একটি বিবৃতি দেন তৃণমূল মহাসচিব এবং শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। তাঁর ওই বিবৃতির প্রেক্ষিতে রাজভবন থেকে পাল্টা বিবৃতি জারি করা হল শুক্রবার।
বিবৃতিতে রাজ্যপালের প্রেস সেক্রেটারি জানিয়েছেন, না জেনে ভুল তথ্য দিয়েছেন তৃণমূলের মহাসচিব। পাশাপাশি, বৃহস্পতিবার রাজ্যপালের যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে যাওয়া এবং কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রীকে বিক্ষোভ থেকে উদ্ধারের ঘটনায় কোনও ভুল নেই বলে দাবি করেছেন রাজ্যপাল জগদীপ ধানকর। রাজভবনের জারি করা বিবৃতিতে বলা হয়েছে, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছাত্র স্বার্থের কথা ভেবে রাজ্যপাল তথা বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য হিসেবে তিনি যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় যেতেই পারেন। এতে কোনও ভুল নেই।
বৃহস্পতিবার যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের ঘটনার প্রেক্ষিতে কড়া বিবৃতি দিয়েছিল তৃণমূল। বলা হয়, রাজ্য সরকারের সঙ্গে বিশেষ আলোচনা ছাড়া সাংবিধানিক পদে থাকা জগদীপ ধানকরের ঘটনাস্থলে চলে যাওয়াটা দুর্ভাগ্যজনক। এই প্রেক্ষিতে পাল্টা প্রতিক্রিয়ায় রাজভবন জানিয়েছে, যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের ঘটনা নিয়ে একাধিকবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, রাজ্য পুলিশের ডিজি ও মুখ্য সচিবের সঙ্গে রাজ্যপালের কথা হয়েছে। তাই না জেনেই তৃণমূলের মহাসচিব ভুল তথ্য দিচ্ছেন বলে রাজভবনের জারি করা বিবৃতিতে অভিযোগ করা হয়েছে। বলা হয়েছে, অনেক সময় কেটে যাওয়ার পরেও পরিস্থিতির উন্নতি না হওয়ার কারণেই রাজ্যপাল এবং আচার্য নিজে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে পৌঁছেছিলেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমান পরিস্থিতির উন্নতির জন্য আলোচনা হতে পারে। বিশ্ববিদ্যালয়ের সব পড়ুয়ার অভিভাবক হিসাবে সবার জন্যই তাঁর দরজা খোলা রয়েছে বলে রাজভবনের বিবৃতিতে প্রকাশ। পুরো ঘটনায় তৃণমূল সরকারের সঙ্গে রাজ্যপালের চূড়ান্ত সংঘাত তৈরি হল বলে মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল।

Comments
Loading...