ক্যান্সার আক্রান্ত রোগীদের জন্য মাথার চুল-দানের নজিরবিহীন উদ্যোগ নাগা মহিলাদের।

ক্যান্সার আক্রান্ত রোগীদের জন্য এক অভিনব উদ্যোগ নাগাল্যান্ডের মহিলাদের। টানা কেমো থেরাপি নেওয়ার জন্য ক্যান্সার আক্রান্ত অনেকেরই মাথার সমস্ত চুল পড়ে যায়। হীনমন্যতার শিকার হন রোগীরা। তাঁদের সাহায্যে নাগাল্যান্ডের মহিলারা শুরু করেছেন এক অভিনব দান। ‘হেয়ার ফর হোপ’ শীর্ষক এক প্রকল্পে নাগা মহিলারা তাঁদের মাথার চুল দান করছেন। এই দান করা চুল দিয়ে তৈরি করা হবে পরচুলা, যা অর্থনৈতিকভাবে পিছিয়ে থাকা ক্যান্সার রোগীদের বিনামূল্যে দেওয়া হবে।
রবিবার ডিমাপুরের লাইট হাউস চার্চে আনুষ্ঠানিক ভাবে এই প্রকল্পের সূচনা করা হয়। এই প্রকল্পের নেতৃত্ব দিচ্ছেন জনৈক আমেন জামির নামে এক নাগা মহিলা। আমেনের মা ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে মারা গিয়েছিলেন। এই নাগা মহিলা জানিয়েছেন, কেমো নেওয়ার কারণে তাঁর মায়ের মাথার সব চুল পড়ে গিয়েছিল। তীব্র রোগ যন্ত্রণার পাশাপাশি মাথার সব চুল পড়ে যাওয়ার কারণে মানসিক অবসাদেও ভুগতে শুরু করেছিলেন তাঁর মা। আমেন খুব কাছ থেকে দেখেছেন মায়ের সেই কষ্ট। এই মানসিক কষ্ট থেকে ক্যান্সার রোগীদের কিছুটা হলেও স্বস্তি দিতে ‘হেয়ার ফর হোপ’ এর সূচনা করেন তিনি। সংগৃহিত চুল পরচুলা তৈরির জন্য পাঠিয়ে দেওয়া হচ্ছে বেঙ্গালুরুতে। সোশ্যাল মিডিয়াতে ‘হেয়ার ফর হোপ’ নামে একটি পেজ খোলা হয়েছে, যেখানে চুল দানে আগ্রহীরা যোগাযোগ করতে পারেন। আমেন ইতিমধ্যেই নিজে দু’বার চুল দান করেছেন। নাগা মহিলাদের দেখাদেখি সেই রাজ্যের পুরুষরাও এখন দান করছেন তাঁদের চুল। এক নাগা যুবকের কথায়, তাঁর লম্বা ঘন কালো চুল দান করেছেন ক্যান্সার রোগীদের জন্য। তিনি জানিয়েছেন, তাঁর লম্বা চুলের ফ্যাশন বরাবরের পছন্দ, কিন্তু নিজের ভালোলাগার থেকেও ক্যান্সার রোগীদের মানসিক যন্ত্রণা অনেক বেশি। তাই ‘হেয়ার ফর হোপে’ তাঁর এই সামান্য দান।

Comments
Loading...