কোচবিহারে তিস্তার উপর জয়ী সেতুর উদ্বোধনে মুখ্যমন্ত্রী, ৭২ কিমি দূরত্ব কমে হবে ১২ কিমি

কোচবিহার জেলার দুই ব্লক হলদিবাড়ি ও মেখলিগঞ্জ। কিন্তু এই দুই ব্লকের মাঝ বরাবর বয়ে গেছে তিস্তা। ব্রিজ না থাকায় দুই ব্লকে যাতায়াত করতে পেরোতে হতো ৭২ কিলোমিটার। তিস্তার উপর উত্তরবঙ্গের সর্ববৃহৎ জয়ী সেতু তৈরি হয়ে যাওয়ায় হলদিবাড়ি থেকে মেখলিগঞ্জের দূরত্ব কমে হল মাত্র ১২ কিলোমিটার। জয়ী সেতুর উদ্বোধন করতে এ মাসের শেষে আবার কোচবিহার আসছেন মুখ্যমন্ত্রী। সূত্রের খবর, তিস্তার উপর জয়ী সেতু উদ্বোধন করবেন তিনি।

এলাকার মানুষের দীর্ঘদিনের দাবি হলদিবাড়ি থেকে মেখলিগঞ্জ পর্যন্ত সেতু তৈরির। কারণ হলদিবাড়ি থেকে মেখলিগঞ্জ যেতে হলে এতদিন জলপাইগুড়ি, ময়নাগুড়ি, জল্পেশ হয়ে ৭২ কিলোমিটার পথ পেরোতে হতো। এবার জয়ী সেতু দিয়ে মাত্র ১২ কিলোমিটার পথ পেরিয়েই কেউ মেখলিগঞ্জ থেকে হলদিবাড়ি পৌঁছতে পারবেন।

২০১৫ সালে ভারত-বাংলাদেশ ছিটমহল সমস্যা সমাধানের পর রাজ্য সরকার ৪১০ কোটি টাকা ব্যয়ে জয়ী সেতু তৈরির উদ্যোগ নেয়। কদিন আগে জলপাইগুড়ি এসে মমতা ব্যানার্জি জানিয়েছিলেন জয়ী সেতুর কাজ শেষ। এবার জানা যাচ্ছে জয়ী সেতুর উদ্বোধনে নিজেই মেখলিগঞ্জ আসছেন মমতা ব্যানার্জি।

Comments
Loading...