ভোটের মুখে রাজারহাটে অস্ত্র কারখানার হদিশঃ উদ্ধার ৯০ টি নাইন এমএম পিস্তল, গুলি, জাল নোট, এসটিএফের জালে ৭ দুষ্কৃতী

লোকসভা ভোটের মুখে পুরোদস্তুর অস্ত্র কারখানার হদিশ মিলল কলকাতা লাগোয়া রাজারহাটে। বাজেয়াপ্ত হল মোট ৯০ টি নাইন এমএম পিস্তল, গুলি, বন্দুক তৈরির জিনিসপত্র, জাল নোট। কারখানার চেহারা এবং তার বন্দোবস্ত দেখে চোখ কপালে উঠেছে গোয়েন্দাদের। বিহারের মুঙ্গেরের ধাঁচে কলকাতার শহরতলিতে গড়ে ওঠা এই অস্ত্র কারখানা দুশ্চিন্তায় রেখেছে প্রশাসনকে।

নির্দিষ্ট সোর্স মারফত খবর পেয়ে বৃহস্পতিবার কলকাতা পুলিশের স্পেশাল টাস্ক ফোর্স (এসটিএফ) গ্রেফতার করে ৪ জনকে। তাদের কাছে মেলে ৩০ টি নাইন এমএম পিস্তল। ধৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ করে গোয়েন্দারা জানতে পারেন, রাজারহাটের দোননগর এলাকার এই অস্ত্র কারখানার কথা। এরপর বিধাননগর পুলিশকে সঙ্গে নিয়ে এসটিএফের গোয়েন্দারা হানা দেন রাজারহাটের সেই বাড়িতে। সেখান থেকে প্রায় তৈরি হয়ে যাওয়া আরও ৬০ টি নাইন এমএম পিস্তল উদ্ধার করেন গোয়েন্দারা। উদ্ধার করা হয় বন্দুক তৈরির জিনিস, মশলা, গুলি। সেখানে আধুনিক অস্ত্র তৈরির পুরোদস্তুর কারখানা বানিয়ে ফেলেছিল দুষ্কৃতীরা। রাজারহাটের ওই বাড়ি থেকে আরও ৩ জনকে গ্রেফতার করা হয়। সেই সঙ্গে ধৃতদের কাছ থেকে ৮৮ হাজার টাকার জাল নোটও উদ্ধার করা হয়েছে। ধৃত মোট ৭ জনের মধ্যে ৬ জনই বিহারের বাসিন্দা। একজনের বাড়ি রাজারহাটে।
এর আগে এসটিএফ বারাকপুর এলাকায় অস্ত্র কারখানার হদিশ পেয়েছিল। কিন্তু সল্টলেক লাগোয়া রাজারহাটে যেভাবে পুরোদস্তুর অস্ত্র কারখানা গড়ে উঠেছিল এবং যে ধরনের বন্দুক সেখানে তৈরি হচ্ছিল, তা ভোটের আগে চিন্তা বাড়িয়েছে গোয়েন্দাদের।

Comments
Loading...