দাবি মানল কর্তৃপক্ষ, ১৪ দিনের মাথায় অনশন তুললেন মেডিকেলের পড়ুয়ারা।

সকলেই তাকিয়ে ছিলেন সোমবার মেডিকেল কর্তৃপক্ষের বৈঠকের দিকে। কী সিদ্ধান্ত নেন কর্তৃপক্ষ! এদিন দুপুর ১টা নাগাদ নিজেদের মধ্যে বৈঠকের পর মেডিকেল কলেজ কর্তৃপক্ষ লিখিতভাবে জানিয়ে দেয়, তৃতীয় ও চতুর্থ বর্ষের আন্দোলনরত পড়ুয়াদের সব দাবি মেনে নেওয়া হচ্ছে। আন্দোলনকারীদের মূল দাবি মেনে, নবনির্মিত ১১ তলা হস্টেল বিল্ডিংয়ে সিনিয়র পড়ুয়াদের থাকার জন্য দু’টি তল বরাদ্দের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। নতুন এই হোস্টেল জায়গা পাবেন পোস্ট গ্র্যাজুয়েট মেডিকেল পড়ূয়ারাও। পাশাপাশি, এতদিন ধরে মেডিকেল কলেজ কর্তৃপক্ষ যে দাবি করে আসছিল, একই হস্টেল বিল্ডিংয়ে প্রথম বর্ষের পড়ূয়াদের সঙ্গে সিনিয়রদের রাখা যাবে না, সেই দাবি থেকেও পিছু হঠে। ওই একই হোস্টেলে প্রথম বর্ষের পড়ূয়াদেরও থাকার ব্যবস্থা করা হবে বলে এদিন জানিয়ে দেওয়া হয়েছে কর্তৃপক্ষের তরফে। একই সঙ্গে পুরনো হস্টেলের সংস্কার ও সেখানে সঠিক পদ্ধতিতে সুপারিটেন্ডেন্ট ও ওয়ার্ডার নিয়োগের দাবিও এদিন মেনে নেওয়া হয়েছে।
এদিন মেডিকেল কর্তৃপক্ষের এই লিখিত সিদ্ধান্ত জানার পরই অনশন প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত নেন আন্দোলনরত পড়ুয়ারা। কর্তৃপক্ষ সব দাবি মেনে নেওয়ায়, আনন্দে ফেটে পড়েন সকলে। পরে, ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ অশোক ভদ্রের হাতে ফলের রস খেয়ে আন্দোলন প্রত্যাহার করেন অনশনরত পড়ূয়ারা।

Comments
Loading...