বিপর্যয় নিশ্চিত বুঝেই ফেক সার্ভে! বিজেপিকে কটাক্ষে বিঁধে ট্যুইট পিকের I-PAC এর

তৃণমূলের ভোট কুশলী পিকের সংস্থা আইপ্যাক

সোশ্যাল মিডিয়া ছয়লাপ হাজার হাজার সমীক্ষা রিপোর্টে। মনগড়া রিপোর্টকে বিশ্বাসযোগ্য করে তুলতে যথেচ্ছ ব্যবহার চলছে বিভিন্ন নামি সংস্থার নাম। সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়ে এমনই একটি রিপোর্ট। তৃণমূলের ভোট ও প্রচার পরামর্শদাতা সংস্থা আইপ্যাকের নাম ছাপিয়ে ওই রিপোর্টকে আরও বিশ্বাসযোগ্যতা দেওয়ার চেষ্টা করা হয়েছিল। সেই রিপোর্ট তুলে ধরে ফেক নিউজের পর্দাফাঁস করল প্রশান্ত কিশোরের আইপ্যাক।
একুশের নির্বাচনে বিজেপি নিশ্চিত হার বুঝতে পেরে, আইপ্যাকের সার্ভে রিপোর্ট বলে ভুল সার্ভে রিপোর্ট ছড়াচ্ছে। বুধবার এমনই চাঞ্চল্যকর অভিযোগ করে ট্যুইট করল, তৃণমূলের ভোট কুশলী পিকের সংস্থা আইপ্যাক।
আইপ্যাকের তরফে একটি ডেস্কটপের স্ক্রিনশট পোস্ট করা হয়, যাতে একটি সার্ভে রিপোর্ট দেখা যাচ্ছে। ছবির উপরে বড় করে লাল রঙে লেখা ফেক।
ছবির ক্যাপশনে আইপ্যাকের তরফে দাবি করা হয়, বিজেপি তাদের কোম্পানির নামে একটি সার্ভে রিপোর্ট সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করেছে। ওই সার্ভে রিপোর্ট অনুযায়ী, আইপ্যাকের সার্ভেতে বিজেপিকে এগিয়ে রাখা হয়েছে। পিকের সংস্থা গেরুয়া শিবিরকে কটাক্ষ করে লেখে, বাংলায় বিজেপির শোচনীয় পরাজয় হতে চলেছে, এটা বিজেপি জেনে গিয়েছে। তাই নিজেদের কর্মীদের মনবল ধরে রাখতে আইপ্যাকের নাম নিয়ে এই ধরনের ভুয়ো খবর ছাড়াচ্ছে।
ট্যুইটের দ্বিতীয় ভাগে বিজেপির উদ্দেশে পিকের টিমের টিপ্পনি, আইপ্যাকের কর্মচারীরা ডেক্সটপ ব্যবহার করেন না। বিজেপিকে কটাক্ষ ভরা উপদেশ, ভুয়ো খবর অথবা ভুয়ো সার্ভে ছড়ানোর ক্ষেত্রে আরো বেশি বুদ্ধিদীপ্ত পরিশ্রম প্রয়োজন।

বাংলার ভোটের সময় সোশ্যাল সাইটগুলো ছয়লাপ হাজার হাজার সমীক্ষা রিপোর্টে। প্রতিটি সার্ভে রিপোর্টেই এক একটি দল এগিয়ে। সোশ্যাল মিডিয়ায় উড়ে বেড়ানো সার্ভে রিপোর্টের আদৌ কোনও সত্যতা আছে কিনা তা নিয়েই এখন প্রশ্ন। এই অবস্থায় যেভাবে একটি বেসরকারি সংস্থার তরফে ফেক নিউজ ছড়ানোর জন্য কটাক্ষ করা হল বিজেপিকে, তাকে নজিরবিহীন বলেই মনে করছেন রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরা।

Comments
Loading...