মোদী জমানায় চার বছরে দেশে বার্ষিক আয়ের নিরিখে কোটিপতির সংখ্যা বাড়ল ৬০ শতাংশ

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ক্ষমতায় আসার পর বিগত চার বছরে ২০১৪ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত দেশে কোটিপতির সংখ্যা বেড়েছে ৬০ শতাংশ। সম্প্রতি এমনই তথ্য প্রকাশ পেয়েছে সেন্ট্রাল বোর্ড অফ ডিরেক্ট ট্যাক্সেসের (সিবিডিটি) পেশ করা রিপোর্টে। রিপোর্টে বলা হয়েছে, বার্ষিক আয় কোটি টাকারও বেশি, ২০১৭-১৮ অর্থবর্ষে এরকম আয়করদাতার সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১ লাখ, ৪০ হাজার ১৩৯ জনে, যা ২০১৪-১৫ অর্থবর্ষে ছিল ৮৮ হাজার ৬৪৯ জন। অর্থাৎ, চার বছরে দেশে প্রায় ৬০ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে কোটিপতির সংখ্যা। রিপোর্টে আরও বলা হয়েছে, বিগত চার বছরে ট্যাক্স রিটার্ন ফাইল করার সংখ্যাও বেড়েছে প্রায় ৮০ শতাংশ।
২০১৪-১৫ অর্থবর্ষে ট্যাক্স রিটার্ন ফাইলের সংখ্যা ছিল ৩.৭৯ কোটি, যা ১৭-১৮ অর্থবর্ষে তা বেড়ে হয়েছে ৬.৫৮ কোটি। রিপোর্টে আরও বলা হয়েছে, বার্ষিক আয় কোটি টাকার বেশি এরকম যে ব্যক্তিরা এই চার বছরে কর জমা দিয়েছেন, তাঁদের মধ্যে বেশিরভাগই বিজনেস ফার্ম, ব্যবসা, কর্পোরেট সেক্টর-এর সাথে যুক্ত। এর মধ্যে একান্নবর্তী পরিবারের সদস্যরাও রয়েছেন।
কিন্তু করদাতাদের সংখ্যায় কেন এমন বিপুল বৃদ্ধি? সিবিডিটি-এর চেয়ারম্যান সুশীল চন্দ্র জানিয়েছেন, কর ফাঁকি রুখতে বিগত কয়েক বছরে ট্যাক্স ডিপার্টমেন্টসহ অন্যান্য এজেন্সির তৎপরতার কারণেই এই সংখ্যায় এত বৃদ্ধি।
তবে এই তথ্যকে সামনে রেখে ইতিমধ্যেই শুরু হয়েছে রাজনীতি। বিরোধীদের দাবি, মোদি জমানায় বড় ব্যবসায়ী, কর্পোরেট সেক্টরের আধিকারিকরা লাভবান হচ্ছেন বলে যে দাবি করে আসছিলেন, তা প্রমাণিত হল। আর বিজেপির দাবি, নোট বাতিলের সিদ্ধান্তের ফলে যে কর ফাঁকি আটকানো গেছে, করদাতার সংখ্যা বেড়েছে তারই প্রমাণ এই পরিসংখ্যান।

Comments
Loading...