সার্ক সম্মেলনে পাকিস্তানের মোদীকে আমন্ত্রণের প্রস্তাব ফেরাল ভারত

মঙ্গলবার পাকিস্তানের বিদেশ মন্ত্রকের তরফে জানানো হয়েছিল, এবারের সার্ক শীর্ষ সম্মেলনে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে আমন্ত্রণ জানাবে তারা। পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান ক্ষমতায় আসার পর ভারতের সঙ্গে সম্পর্কের উন্নতির যে কথা বলেছিলেন, তারই অঙ্গ হিসেবে মোদীকে পাকিস্তানে আমন্ত্রণের এই প্রস্তাব বলে মনে করা হচ্ছিল। কিন্তু জানা গেছে, এই পাক প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছে ভারত।
ভারতীয় বিদেশ মন্ত্রক সূত্রে খবর, পাকিস্তানের এরকম বিবৃতি দেওয়ার কোনও এক্তিয়ারই নেই। কারণ, দক্ষিণ এশিয়ার সার্ক গোষ্ঠীভুক্ত দেশগুলি নিজেদের মধ্যে আলোচনা করে সার্ক সামিটের দিনক্ষণ ঠিক করে। তারপর যে রাষ্ট্র সার্ক সম্মেলনের দায়িত্ব পায় সরকারিভাবে তারা সদস্য রাষ্ট্র ও রাষ্ট্র নেতাদের সম্মেলনে যোগ দেওয়ার আমন্ত্রণ পত্র পাঠায়। কিন্তু পরের সার্ক শীর্ষ সম্মেলন পাকিস্তানে হবে ঠিক থাকলেও, তার দিনক্ষণ নিয়ে এখনও কোনও আলোচনা হয়নি। তাই আগ বাড়িয়ে পাকিস্তান এরকম আমন্ত্রণ পাঠাতে পারে না বলেই মত ভারতের। বিদেশমন্ত্রকের তরফে আরও বলা হয়েছে, ভারত সার্কের একটি সদস্য রাষ্ট্র, কোনও অতিথি রাষ্ট্র নয় যে তাকে আলাদাভাবে সাংবাদিক বৈঠক করে আমন্ত্রণ জানাতে হবে। ভারতীয় বিদেশ মন্ত্রক সূত্রের খবর, শ্রীলঙ্কা, বাংলাদেশ ও আফগানিস্তান এখনই পরবর্তী সার্ক সম্মেলন নিয়ে বিশেষ কিছু জানায়নি তাদের আভ্যন্তরীণ কিছু সমস্যার কারণে। তাই আগ বাড়িয়ে এরকম কাজ না করলেই পারতো পাকিস্তান।
উল্লেখ্য, ২০১৬ সালে উরি সেনা ছাউনিতে জঙ্গি হামলার পর সেই বছরের সার্ক সম্মেলনে পাকিস্তানের সঙ্গে এক মঞ্চে থাকতে অস্বীকার করেছিল ভারত। বয়কট করা হয়েছিল সার্ক সম্মেলন। ভারতের মতো একই পথে হেঁটেছিল বাংলাদেশ, শ্রীলঙ্কা, আফগানিস্তান, ভুটানের মতো দেশগুলি। ফলে সে যাত্রায় সার্ক সম্মেলন ভেস্তে গিয়েছিল।
এদিকে, সৌহার্দ্যের বার্তা দিতে, ভারতের বহুদিনের দাবি মেনে বুধবার করতারপুর করিডর নির্মাণের কাজ আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু করতে চলেছে পাকিস্তান। বুধবার প্রকল্পের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করার কথা পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের। এর ফলে পঞ্জাব হয়ে পাকিস্তানস্থিত গুরু নানকের স্মৃতি বিজরিত স্থান পরিদর্শনে যাওয়া সহজ হবে এদেশের শিখ ধর্মাবলম্বীদের।

Comments
Loading...