‘কারও স্ত্রী হিসেবে নয়, আমার স্বতন্ত্র পরিচয় আছে’, অ্যাটর্নি জেনারেলকে আদালতে বললেন আইনজীবী ইন্দিরা জয়সিংহ

কারও স্ত্রী নয়, আমার পরিচয় একজন স্বতন্ত্র ব্যক্তি হিসেবে, ঠিক এই ভাষাতেই শীর্ষ আদালতে অ্যাটর্নি জেনারেলকে তাঁর মন্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে প্রতিবাদ জানালেন আইনজীবী ইন্দিরা জয়সিংহ।
বৃহস্পতিবার সুপ্রিম কোর্টের ৪ নম্বর কোর্ট রুমে চলছিল আইনজীবী প্রশান্ত ভূষণের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার মামলা। এই নজিরবিহীন মামলার শুনানি চলাকালীন ৪ নম্বর কোর্ট রুম চত্ত্বর সাক্ষী হল আর এক চমকপ্রদ ঘটনার। ভরা কোর্টরুমে অ্যাটর্নি জেনারেল কে কে বেনুগোপালকে তাঁর মন্তব্যের জন্য একরকম তিরস্কারই করলেন আইনজীবী ইন্দিরা জয়সিংহ।
বিচারপতি অরুণ মিশ্র আইনজীবী আনন্দ গ্রোভারকে জিজ্ঞেস করেন এই মামলা কে এগিয়ে নিয়ে যাবেন? আইনজীবী গ্রোভার বলেন, ‘মিস জয়সিংহ’। বিচারপতি অরুণ মিশ্র ফের প্রশ্ন রাখেন, ‘ইন্দিরা জয়সসিংহ নন?’ তার উত্তরে আইনজীবী আনন্দ গ্রোভার বলেন, ‘হ্যাঁ, মিস ইন্দিরা জয়সিংহ, একই নাম’। তখনই উপস্থিত অ্যাটর্নি জেনারেল কে কে বেনুগোপাল আইনজীবী গ্রোভারের উদ্দেশে মন্তব্য করেন, ‘আপনার বলা উচিত, স্ত্রীকে ডাকছেন এবার।’ আর এতেই ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন আইনজীবী আনন্দ গ্রোভারের স্ত্রী আইনজীবী ইন্দিরা জয়সিংহ। অ্যাটর্নি জেনারেলকে তাঁর মন্তব্য প্রত্যাহার করতে বলেন নারী বৈষম্যের বিরুদ্ধে বেশ কয়েকটি মামলা লড়াই করা প্রখ্যাত আইনজীবী ইন্দিরা জয়সিংহ। অ্যাটর্নি জেনারেল কে কে বেনুগোপালের উদ্দেশে আইনজীবী জয়সিংহ বলেন, ‘মন্তব্য প্রত্যাহার করুন মাননীয় অ্যাটর্নি জেনারেল। আমি একজন স্বতন্ত্র ব্যক্তি।’ আইনজীবী আনন্দ গ্রোভারও অ্যাটর্নি জেনারেলের মন্তব্যে অসন্তুষ্ট হন। যদিও জোর গলায় কথা বলার জন্য আদালতে অ্যাটর্নি জেনারেল কে কে বেনুগোপালের ক্ষমা চেয়ে নেন আইনজীবী ইন্দিরা জয়সিংহ। তবে এবিষয়ে তিনি পরিষ্কার জানিয়ে দেন, কারও স্ত্রী, এর বাইরেও তাঁর আলাদা পরিচয় আছে। সেটার প্রতি সম্মান জানানোই অভিপ্রেত বলে মনে করেন ২০১৮ সালের ফোবর্স পত্রিকায় Greatest Leaders of the World এর তালিকায় জায়গা করে নেওয়া আইনজীবী ইন্দিরা সিংহ। অ্যাটর্নি জেনারেলের উদ্দেশে তিনি এও বলেন, ‘আমরা নিজেদের স্বতন্ত্র আইনজীবী হিসেবেই পরিচয় দিই, কারও স্ত্রী বা স্বামী হিসেবে নয়।’
যদিও দৃশ্যত অপ্রস্তুত অ্যাটর্নি জেনারেল কেবল মন্তব্য করেন, ইন্দিরা জয়সিংহ একজন ভালো আইনজীবী।

Comments
Loading...