দিল্লি, উত্তর প্রদেশ থেকে ১০ আইএসআইএস জঙ্গিকে গ্রেফতার করল এনআইএ, উদ্ধার রকেট লঞ্চার, পিস্তল, ২৫ কেজি রাসায়নিক

আন্তর্জাতিক জঙ্গি সংগঠন আইএসআইএস-এর সঙ্গে যোগসাজশ থাকার সন্দেহে ১০ জনকে গ্রেফতার করল কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা এনআইএ। ধৃতরা দিল্লির বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় নাশকতার ছক কষেছিল বলে দাবি এনআইএ’র।
গোপন সূত্রে খবর পেয়ে বুধবার ভোরে দিল্লি ও উত্তরপ্রদেশের বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালায় এনআইএ’র একাধিক তদন্তকারীর দল। মোট ১৬ টি জায়গায় চলে তল্লাশি।
এনআইএ জানিয়েছে, হরকত-উল- হার্ব-ই-ইসলাম নামে জঙ্গি সংগঠন প্রবেশ করেছে ভারতে। পশ্চিম এশিয়ার জঙ্গি সংগঠন আইএসআইএস-এর শাখা সংগঠন এটি। গোয়েন্দাদের দাবি, দিল্লিতে কয়েক দিন ধরে ঘাঁটি গেড়েছিল সংগঠনের সদস্যরা। দেশজুড়ে নাশকতার পরিকল্পনা করছিল তারা। তল্লাশি চালিয়ে উত্তর প্রদেশ থেকে ৫ জন এবং দিল্লি থেকে আরও ৫ সন্দেহভাজনকে গ্রেফতার করা হয়। ধৃতদের মধ্যে ৫ জন উত্তর প্রদেশেরই আমরোহার বাসিন্দা বলে জানা গিয়েছে। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করে গোয়েন্দারা জানতে পারেন, এর মধ্যে রয়েছে দুই কলেজ পড়ুয়াও। যাদের একজন দিল্লির এক ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজের ছাত্র। ওই গোষ্ঠীর নেতা জনৈক মুফতি সোহেল। আমরোহার এক মসজিদে কাজ করত সে। তাকেও গ্রেফতার করেছে পুলিশ।
এনআইএ’র ইন্সপেক্টর জেনারেল অলোক মিত্তল জানিয়েছেন, ওই সংগঠনের টার্গেট লিস্টে ছিলেন বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের একাধিক নেতা। দীর্ঘ চার মাস ধরে তারা ছক কষছিল ভিআইপিদের খুন করার। পরিকল্পনা হচ্ছিল, আত্মঘাতী বোমা এবং রিমোট কন্ট্রোল বোমা দিয়ে হামলা চালানোর। ধৃতদের কাছ থেকে উদ্ধার করা হয়েছে নগদ প্রায় সাড়ে ৭ লক্ষ টাকা, রকেট লঞ্চার, ১২ টি পিস্তল, ২৫ কেজি রাসায়নিক, ১০০ টি মোবাইল ফোন, ১৩৫ টি সিম কার্ড, ১০০ টি অ্যালার্ম ঘড়ি, ল্যাপটপ এবং মেমরি কার্ড। হোয়াটসঅ্যাপ এবং টেলিগ্রাম ইত্যাদি অ্যাপের সাহায্যে সংগঠনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হোত। ধৃতদের দফায় দফায় জেরা করছেন তদন্তকারী সংস্থা এনআইএ’র গোয়েন্দারা।
চলতি বছরের অগাষ্ট মাসে বেঙ্গালুরু থেকে এনআইএ-এর জালে ধরা পড়ে মহম্মদ আবদুল্লা বাসিত ও আবদুল কাদের নামে দুই আইএসআইএস জঙ্গি। ২০১৮ সালের সেপ্টেম্বরে দিল্লির জামা মসজিদ সংলগ্ন এলাকা থেকে ২ জঙ্গিকে গ্রেফতার করে পুলিশ। ধৃতদের কাছ থেকে উদ্ধার হয়েছিল দুটি আগ্নেয়াস্ত্র ও কার্তুজ। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশ জানতে পারে, আহমেদাবাদ ও মুম্বইয়ে নাশকতার ছক চলছিল। ২০১৭ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে আইএসআইএস জঙ্গি সংগঠনের সঙ্গে যুক্ত থাকার সন্দেহে রাজকোট ও ভাবনগর থেকে বিস্ফোরকসহ ২ দুষ্কৃতীকে গ্রেফতার করে পুলিশ। ওই মাসেই কেরল থেকে আরও এক জঙ্গিকে গ্রেফতার করা হয়।

Comments
Loading...