এত বছর বাদে বাবা-মায়ের বিচ্ছেদ নিয়ে মুখ খুললেন কুমার শানুর ছেলে, বাবাকে নিয়ে কী বললেন বিগ বস ১৪ র প্রতিযোগী?

নয়ের দশকে বলিউড প্লে-ব্যাক জগতে তিনি ছিলেন একচ্ছত্র অধিপতি। রোমান্টিক গান দিয়ে যিনি একটা পুরো প্রজন্মকে মন্ত্রমুগ্ধ করে রেখেছিলেন, সেই কুমার শানুর নিজের বৈবাহিক জীবনে অবশ্য ঝড় বয়ে গিয়েছিল। প্রবল অশান্তির কারণে ১৯৯৪ সালে স্ত্রী রীতা ভট্টাচার্যকে ডিভোর্স দেন কুমার শানু। আজ ২৬ বছর পর বাবা-মায়ের সেই বিবাহ বিচ্ছেদ নিয়ে মুখ খুললেন জান কুমার শানু। যিনি এবার ‘বিগ বস ১৪’র প্রতিযোগী।

‘বিগ বস’ এর এবারের প্রতিযোগীরা, জান কুমার শানু, জেসমিন ভাসিন, সারা গুরপাল, নিক্কি তাম্বোলি তাঁদের ছোটবেলা নিয়ে সম্প্রতি মুখ খোলেন। এই কথোপকথনে জান কুমার শানু জানান বাবা নন, তার জীবনে সবচেয়ে বড়ো ভূমিকা মায়ের। তিনি বলেন, আমার কাছে মা-বাবা, সবটাই ছিলেন আমার মা। যখন আমি মায়ের গর্ভে (৬ মাস) ছিলাম, তখনই আমার বাবা-মা আলাদা হয়ে যান। ছোট থেকে আমি আমার মায়ের কাছেই বড়ো হয়েছি। উনিই আমার মা-বাবা সব। আমি এখানে আসার আগে আমি সবচেয়ে বেশি চিন্তায় ছিলাম আমার মা-কে নিয়েই। আমি এখানে এলে মায়ের দেখাশোনা কে করবে সেটাই ছিল চিন্তার। ভালোবাসা নিয়েও আমি মায়ের মতো প্রাচীনপন্থী। একজনই মানুষ থাকবে আমার জীবনে।

কুমার শানু ও রীতা ভট্টাচার্যের বিবাহ-বিচ্ছেদ বড়ো চর্চার বিষয় হয়ে উঠেছিল সেই নয়ের দশকে। প্রচুর পত্রপত্রিকায় খবর হোত সেসময়। উত্তর কলকাতার মধ্যবিত্ত যুবক বম্বে গিয়ে রাতারাতি বিখ্যাত হয়ে নিজের শিকড় ভুলে যান বলে অভিযোগ করেছিলেন রীতা। তিনি বলেছিলেন, কলকাতার কেদার ভট্টাচার্যের সঙ্গে আজকের কুমার শানুর বিশাল পার্থক্য। পাশাপাশি শানুর বিরুদ্ধে মারধর, নির্যাতনের অভিযোগ এনেছিলেন তিনি। এদিকে এসব অভিযোগ উড়িয়ে দিয়ে এক ইন্টারভিউতে কুমার শানু স্ত্রীকে পাগল বলে মন্তব্য করেছিলেন। যে তিক্ততা এমন জায়গায় পৌঁছয় ১৯৯৪ সালে ডিভোর্স হয়ে যায় তাঁদের। রীতা ভট্টাচার্যের সঙ্গে বিচ্ছেদের পর কুমার শানু আবার বিয়ে করলেও রীতা একাই থেকে যান। ছোটবেলায় মা কীভাবে তাঁকে একাহাতে মানুষ করেছেন সেটাই সম্প্রতি জানান শানু-পুত্র।

জানের আসল নাম অবশ্য জয়েস ভট্টাচার্য। এই কলকাতাতেই বড়ো হয়ে উঠেছেন তিনি। কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পড়াশোনা করেছেন। বাবার মতো তিনিও গায়ক। বেশ কয়েকটি অ্যালবাম আছে। তবে বাবার গাওয়া ‘দিল মেরা চুরায়া কিঁউ’ গানটিকে নতুন করে পরিবেশনের মাধ্যমে ইউটিউবে প্রবল জনপ্রিয় হন তিনি। বিগ বস ১৪’ তে যাওয়ার আগে বা-মা দু’জনেরই আশীর্বাদ চান তিনি। জানান, বাবা কয়েকটা টিপসও দিয়েছেন। যদিও তাঁর জীবনে সবচেয়ে বড়ো অবদান যে তাঁর মায়ের, সে কথা সাফ জানালেন জান কুমার শানু।

 

Comments
Loading...