ফের উত্তপ্ত কাঁকিনাড়া, রেল অবরোধ, বোমাবাজি, ভাটপাড়া পুরসভা ভাঙচুরের চেষ্টা, গুলি চালানোর অভিযোগ পুলিশের বিরুদ্ধে

লোকসভা ভোটের সময় থেকেই কার্যত রণক্ষেত্রের চেহারা নিয়েছে বারাকপুর লোকসভার ভাটপাড়া, কাঁকিনাড়া সহ বিস্তীর্ণ এলাকা। শান্তি ফেরাতে একাধিক প্রচেষ্টা সত্ত্বেও এখনও পর্যন্ত হিংসার বাতাবরণ উত্তর ২৪ পরগনার বিভিন্ন এলাকায়।

এলাকায় শান্তি ফেরানোর দাবিতে এবং হিংসা-হানাহানির বিরোধিতা করে সোমবার সকালে কাঁকিনাড়া স্টেশনে অবরোধ করেন স্থানীয় বাসিন্দারা। রেল লাইনের উপর সিমেন্টের স্লিপার ফেলে চলতে থাকে অবরোধ। পুলিশ এলাকায় শান্তি ফেরানোর আশ্বাস দিলে ঘণ্টাদুয়েক পর অবরোধ তুলে নেন স্থানীয়রা। কিন্তু অবরোধ উঠলেও শান্তি ফেরেনি।

অবরোধ উঠে যাওয়ার পরই কাঁকিনাড়া, ভাটপাড়া এলাকায় শুরু হয়ে যায় বোমা বৃষ্টি। দুষ্কৃতীরা ভাটপাড়া পুরসভা ভবনের ভিতর ঢোকার চেষ্টা করলে পুলিশ বাধা দেয়। তালা আটকে দেওয়া হয় পুরসভার প্রধান গেটে। অভিযোগ, পুরসভায় ঢুকতে বাধা পেয়ে যথেচ্ছ বোমাবাজি শুরু করে দুষ্কৃতীরা। ভাঙচুর করা হয় পুরসভা চালিত একটি স্বাস্থ্য প্রকল্পের কার্যালয়ে। বোমাবাজির খবর ছড়িয়ে পড়তেই বন্ধ হয়ে যায় দোকান-বাজার। ঘরবন্দি হয়ে পড়েন সাধারণ মানুষ। অঘোষিত বনধের চেহারা নেয় গোটা এলাকা। সূত্রের খবর, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে কয়েক রাউন্ড গুলি চালায় পুলিশ। ভাটপাড়া, কাঁকিনাড়ায় পুলিশ পিকেট বসানো হয়েছে, নামানো হয়েছে র‍্যাফ। এদিকে সোমবার সকালে গোপন সূত্রে খবর পেয়ে কাঁকিনাড়ার কাটাডাঙায় একটি পরিত্যক্ত রেল কোয়ার্টারে তল্লাশি চালায় পুলিশ। উদ্ধার হয় ৫০ টি তাজা বোমা ও বিপুল পরিমাণ বোমা তৈরির মশলা।

এর আগে শনিবার ও রবিবার ভাটপাড়া, কাঁকিনাড়ার বিস্তীর্ণ এলাকায় বোমাবাজির ঘটনা ঘটে। লাগাতার হিংসা-হানাহানির প্রতিবাদে সোমবার স্থানীয় বাসিন্দারা রেল অবরোধ করেন। কিন্তু পুলিশ আশ্বাসে অবরোধ উঠলেও, বোমাবাজিতে রেহাই নেই।

Comments are closed.