কান্তি গাঙ্গুলি: সিপিএম আমলেই শুরু হয়েছিল কাটমানি নেওয়া, পঞ্চায়েতের বহু সদস্য দুর্নীতিতে যুক্ত হয়ে পড়েছিলেন

কাটমানি ইস্যু নিয়ে মুখ খুলে এবার সিপিএমের অন্দরে নয়া বিতর্কের জন্ম দিলেন রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী কান্তি গাঙ্গুলি। রাজনীতিতে অস্পৃশ্যতা নেই বলে তৃণমূল প্রসঙ্গে মন্তব্য করে ইতিমধ্যেই দলের মধ্যে বিড়ম্বনা বাড়িয়েছেন সিপিএম বিধায়ক তন্ময় ভট্টাচার্য। এবার কান্তি গাঙ্গুলির কাটমানি প্রসঙ্গে বিস্ফোরক মন্তব্য নতুন করে সমস্যায় ফেলল সিপিএমকে। কান্তি গাঙ্গুলি বলেন, কাটমানি সমস্যা সিপিএমের আমলেই শুরু হয়েছিল বাম আমলে পঞ্চায়েতের বহু কাজের ক্ষেত্রেই কাটমানির অভিযোগ এসেছে, যা মানুষের মধ্যে ক্ষোভ সৃষ্টি করেছিল।
লোকসভা ভোটের বিপর্যয়ের পর দলের শুদ্ধকরণে একাধিক পদক্ষেপ নিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তার মধ্যে অন্যতম কাটমানি প্রসঙ্গ। সরকারি কাজ পেতে গেলে কাউকে যেন কাটমানি দিতে না হয় এই কথা বলে মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছিলেন, যাঁরা কাটমানি নিয়েছেন, তাঁরা সাধারণ মানুষকে টাকা ফেরত দিন। তৃণমূল নেত্রীর এই মন্তব্যের পরই জেলায় জেলায় শুরু হয় বিক্ষোভ। এই ইস্যুতে মুখ্যমন্ত্রীর সমালোচনায় সরব হয়েছিল সিপিএম। গোটা তৃণমূলই দুর্নীতিতে যুক্ত বলে অভিযোগ করেছিলেন আলিমুদ্দিন স্ট্রিটের নেতারা। এবার সিপিএমের দক্ষিণ ২৪ পরগনার গুরুত্বপূর্ণ নেতা এবং রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী কান্তি গাঙ্গুলির বিস্ফোরক মন্তব্যে সিপিএম শীর্ষ নেতৃত্বই নতুন করে বিড়ম্বনায় পড়ল।
সোমবার কান্তি গাঙ্গুলি বলেন, সিপিএমে আমলেই পঞ্চায়েতে কাটমানি চালু হয়েছিল। বহু অভিযোগ আসা সত্ত্বেও এর বিরুদ্ধে উপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়া যায়নি। পরে কাটমানিতে অভিযুক্ত বহু নেতাই দলবদল করে তৃণমূলে যোগ দেন। তিনি বলেন, বাম আমলের শেষদিকে পঞ্চায়েতে বহু দুর্নীতিগ্রস্ত নেতা সরকারি প্রকল্পের কাজের বিনিময়ে টাকা নিয়েছেন। তাঁদের সতর্কও করা হয়েছিল। দলের নিচুতলায় তা নিয়ে বহু অভিযোগও ছিল। শুদ্ধকরণের কাজ শুরু হয়েছিল। কান্তি গাঙ্গুলির বক্তব্য, পঞ্চায়েতের মাধ্যমে দুর্নীতির একটা বিকেন্দ্রীকরণ হয়েছিল, যার জন্য সাধারণ গরিব মানুষের মধ্যে সিপিএমকে নিয়ে ব্যাপক ক্ষোভ, অসন্তোষ তৈরি হয়েছিল। কিন্তু ঠিকভাবে তা মোকাবিলা করা যায়নি।
কান্তি গাঙ্গুলির এই বক্তব্যে সিপিএম নেতৃত্ব অত্যন্ত ক্ষুব্ধ বলেই সূত্রের খবর। কেন কান্তি গাঙ্গুলির মতো একজন সিনিয়র নেতা রাজ্যের বর্তমান পরিস্থিতিতে এমন মন্তব্য করলেন তা নিয়েও দলের মধ্যে আলোচনা শুরু হয়েছে। এই কথা কান্তি গাঙ্গুলি দলের মধ্যেই জানাতে পারতেন, কিন্তু তা না করে তিনি কেন প্রকাশ্যে বললেন তা নিয়েও জল্পনা শুরু হয়েছে আলিমুদ্দিন স্ট্রিটের অন্দরে।

Comments
Loading...