‘৭০০ কোটি টাকায় হতে পারতো ৭০০ স্কুল’, মুকেশ আম্বানীর মেয়ের বিয়ের খরচ নিয়ে কটাক্ষ জম্মু-কাশ্মীরের রাজ্যপালের

৭০০ কোটি টাকা দিয়ে ৭০০ টি বড় স্কুল করা যেত দেশে। কংবা যুদ্ধে নিহত ৭ হাজার সেনার বিধবা স্ত্রী তাঁদের সন্তানকে বড় করতে পারতেন, ঠিক এই ভাষাতেই নাম না করে রিলায়েন্স কর্ণধার মুকেশ আম্বানীর মেয়ের বিয়েতে বিপুল অর্থ খরচের সমালোচনা করলেন জম্মু-কাশ্মীরের রাজ্যপাল সত্যপাল মালিক।
বরাবরই ঠোঁট-কাটা বলে পরিচিত সত্যপাল মালিক। জম্মু-কাশ্মীরের ‘বড়লোক’ নেতাদের সব সময় তিনি সমালোচনা করে এসেছেন। বুধবার জম্মু-কাশ্মীরে সৈনিক ওয়েলফেয়ারের এক অনুষ্ঠানে আবারও একবার দেশের বিত্ত শ্রেণীর সমালোচনায় মুখর হন সত্যপাল। তিনি বলেন দেশে একটি শ্রেণী আছে যাঁরা কখনও কারও জন্য ভাবেন না। এক টাকা কখনও কোনও গরিবকে দান করেন না। এঁদেরকে তিনি ‘পচা আলু’ বলে কটাক্ষ করেছেন। সত্যপাল মন্তব্য করেন, ‘দেশের সবচেয়ে বড়লোক মেয়ের বিয়েতে ৭০০ কোটি টাকা খরচ করেন, না এঁরা দেশের গরিবদের কিছু দান করেন, না সাহায্য করেন দেশের অর্থনীতিতে। ওই ৭০০ কোটি টাকাতে ৭০০ বড় স্কুল তৈরি হতে পারতো দেশে, ৭ হাজার মৃত সৈনিকের বিধবা স্ত্রী তাঁদের সন্তানকে বড় করে তুলতে পারতেন। কিন্তু না। এই বড়লোকেরা কোনও দান করেন না। সমাজের প্রতি এঁরা কোনও কর্তব্য কখনও পালন করেন না।’
কিন্তু, অন্যান্য দেশের বড়লোকেরা সমাজকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য চেষ্টা করেন। মাইক্রোসফটের মতো বড় কোম্পানির মালিক তাঁর আয়ের ৯৯ শতাংশ দান করেন। কিন্তু এদেশে এমন দৃষ্টান্ত চোখে পড়ে না বলে খেদ রাজ্যপালের। তিনি বলেন, এমন উচ্চবিত্ত শ্রেণীর জন্য পিছিয়ে রয়েছে আমাদের দেশ। কিন্তু এই উচ্চবিত্তরা নন, দেশের কৃষক, মেহনতি মানুষ যাঁরা প্রতিদিন মাঠ থেকে কলকারখানায় ঘাম ঝরান, আর যে সৈনিকরা দেশকে জীবন দিয়ে রক্ষা করেন, এদেশে তাঁরাই প্রয়োজনীয় বলে মন্তব্য করেন সত্যপাল মালিক।

Comments
Loading...