সেনার তদন্তে দোষী সাব্যস্ত কাশ্মীরের বিতর্কিত মেজর লিতুল গগৈ

ভারতীয় সেনার নিজস্ব কোর্ট অফ এনকোয়ারিতে দোষী সাব্যস্ত হলেন কাশ্মীরের বিতর্কিত মেজর লিতুল গগৈ। শ্রীনগরে স্থানীয়দের সঙ্গে বিবাদে জড়িয়ে পড়া ও কর্মরত অবস্থায় কর্মস্থল থেকে দূরে থাকা, এই দুই অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন তিনি। এর আগে ২০১৭ সালেও একবার সংবাদ শিরোনামে উঠে এসেছিল মেজর লিতুল গগৈয়ের নাম। জম্মু-কাশ্মীরের স্থানীয় বিক্ষোভকারীদের ইটের আঘাত থেকে বাঁচতে এক বিক্ষোভকারীকে পুলিশের জিপের সামনে বেঁধে ঘোরানোর অভিযোগ উঠেছিল তাঁর নামে। ঘটনার নিন্দায় সে সময় সরব হয়েছিল একাধিক মানবাধিকার সংগঠন। এই ঘটনা নিয়ে চরম বিতর্ক হলেও সেনা কর্তৃপক্ষ তখন তাঁর পাশেই দাঁড়িয়েছিল।

গত ২৩ মে শ্রীনগরের এক হোটেলে চেক ইন করার সময় মেজর গগৈ হোটেল কর্মীদের সঙ্গে বচসায় জড়িয়ে পড়েন। অভিযোগ, ১৮ বছর বয়সী স্থানীয় এক মহিলা ও নিজের ড্রাইভারকে নিয়ে হোটেলের একটি ঘরে প্রবেশ করতে চেয়েছিলেন মেজর গগৈ। নিয়ম না থাকায় স্থানীয় ওই মহিলাকে নিয়ে হোটেলের ঘরে যাওয়া যাবে না বলে ওই সেনা অফিসারকে জানান হোটেল কর্মীরা। এরপরই হোটেল কর্মীদের সঙ্গে বচসায় এবং বিবাদে জড়িয়ে পড়ার অভিযোগ ওঠে তাঁর মেজরের বিরুদ্ধে। অভিযোগ পেয়ে তাঁকে আটক করে পুলিশ। এই ঘটনা প্রকাশ্যে আসার পর সেনা প্রধান বিপিন রাওয়াত জানিয়েছিলেন, দোষী প্রমাণিত হলে কেউ ছাড় পাবেন না। সোমবার এই ঘটনায় তাঁর দোষ প্রমাণিত হওয়ায় সম্ভবত কোর্ট মার্শালের মুখে পড়তে চলেছেন এই বিতর্কিত সেনা অফিসার।

Comments
Loading...