ভয়াবহ বন্যায় ভাসছে কেরল-কর্ণাটক-মহারাষ্ট্র, মৃতের সংখ্যা বাড়ছে লাফিয়ে, পরিস্থিতি মোকাবিলায় মোদীর সঙ্গে কথা রাহুল গান্ধীর

ভয়াবহ বন্যার কবলে দক্ষিণ ও মধ্য ভারতের ৫ রাজ্য। মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৫৯। লাফিয়ে বাড়ছে মৃতের সংখ্যা। গত কয়েকদিন ধরে টানা বৃষ্টিতে বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হয়েছে কেরল, কর্ণাটক, তামিলনাড়ু, মধ্যপ্রদেশ ও মহারাষ্ট্রে। কেরল ও কর্ণাটকে বন্যায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩১। উদ্ধার কাজে নেমেছে জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনী, উপকূলরক্ষী বাহিনী এবং নৌ সেনা।
শুধুমাত্র কেরলেই বন্যায় মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২২। মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা। বিভিন্ন ত্রাণ শিবিরে আশ্রয় নিয়েছেন অন্তত ২২ হাজার মানুষ। পেরিয়ার নদীতে জলস্তর বৃদ্ধির ফলে কোচি বিমানবন্দর থেকে আগামী রবিবার পর্যন্ত উড়ান পরিষেবা বন্ধ রাখা হয়েছে। ক’দিনের প্রবল বৃষ্টি ও ঝড়ে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে কেরলের ওয়েনাড়, ইদুক্কি, মালাপ্পুরম ও কোঝিকোড়। এই চার জেলায় রেড অ্যালার্ট জারি করেছে কেরল সরকার। বৃহস্পতিবার থেকে রাজ্যের ১৪ টি জেলার স্কুল-কলেজ বন্ধ ঘোষণা করছে পিনারাই বিজয়ন সরকার। ওয়েনাড়ের সাংসদ রাহুল গান্ধী বন্যা নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গেও কথা বলেন।
অন্যদিকে, বন্যায় কর্ণাটকে মৃত্যু হয়েছে ৯ জনের। গত রবিবার থেকে কর্ণাটকের বেশ কয়েকটি জেলায় টানা বৃষ্টির জেরে বন্যা পরিস্থিতি তৈরি হয়। ট্রেন যোগাযোগ বিঘ্নিত।
তামিলনাড়ুর নীলগিরি জেলায় গত ২৪ ঘন্টার টানা বৃষ্টিপাত রেকর্ড গড়েছে। বৃহস্পতিবার সকাল থেকে শুক্রবার সকাল পর্যন্ত নীলগিরিতে ৯১১ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত হয়েছে। তামিলনাড়ুর গুদালুর ও পান্ডালুরের প্রায় ৬০০ বাড়িতে বন্যার জল ঢুকেছে বলে খবর। প্রশাসনের তরফে ১৬ টি ত্রাণ শিবিরের বন্দোবস্ত করা হয়েছে। শুক্রবার থেকে নীলগিরি ও কোয়েম্বাতোরের স্কুল-কলেজ বন্ধ রাখার কথা ঘোষণা করেছেন জেলাশাসক। বিপদসীমার ওপর দিয়ে বইছে ভবানী নদীর জল।
ভয়াবহ বন্যার কবলে মহারাষ্ট্রের বিস্তীর্ণ অঞ্চল। কোলহাপুর শহরে যেদিকেই চোখ যায় শুধু জল আর জল। প্রশাসন সূত্রে খবর, মহারাষ্ট্রের ৫ বন্যা কবলিত জেলায় ২৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। ৩৮ হাজার মানুষ আশ্রয় নিয়েছেন ত্রাণ শিবিরে। হোটেল, বিল্ডিং বা শো-রুম, ফ্লাই ওভার, এখন প্রায় ১০ ফুট জলের তলায়। প্রায় ৩ হাজার ৮০০ টি বাড়ি বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। অন্যদিকে, মধ্যপ্রদেশের ইন্দোর, ভোপাল, উজ্জয়নী সহ প্রায় ২২ টি জেলা বন্যা কবলিত। ভেসে গিয়েছে কয়েক হাজার বাড়ি-ঘর।

Comments
Loading...