সাবরীমালা ইস্যুতে উত্তাল কেরল, কেন্দ্রীয় হস্তক্ষেপের হুমকি বিজেপির, আরএসএসকে পালটা আক্রমণ সিপিএমের

সাবরীমালা ইস্যুতে কেরলজুড়ে হিংসার ঘটনায় শনিবার দিনভর চলল রাজনৈতিক তরজা। কেরলের আইন-শৃঙ্খলার অবনতির জন্য মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়নের বিরুদ্ধে তোপ দাগেন বিজেপির সর্বভারতীয় মুখপাত্র জি ভি এল নরসিংহ রাও। তিনি বলেন, সরকারকে সাবধান করছি। অবিলম্বে উৎপীড়ন বন্ধ হোক। না হলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেবে বিজেপি।
শনিবার, সাবরীমালা ইস্যুতে রাজ্যজুড়ে হিংসা ছড়ানোর অভিযোগে মোট ৩ হাজার ১৭৮ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বুধবার সকালে সাবরীমালা মন্দিরের গর্ভগৃহে দুই মহিলার প্রবেশকে কেন্দ্র করে বিক্ষোভ শুরু করে বিজেপি, আরএসএসসহ বিভিন্ন হিন্দুত্ববাদী সংগঠন। ৩ দিন ধরে নানান হিংসার ঘটনার জেরে কড়া অবস্থান নেয় কেরল পুলিশ। এপর্যন্ত ৪৮৭ জনের বিরুদ্ধে জামিন অযোগ্য ধারায় মামলা রুজু করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিজেপি এবং সিপিএম সমর্থকদের মারামারি শুরু হয় থিরুভন্থপুরমের নিদুমাঙ্গাদ থানার কাছে। দু’পক্ষই পরস্পরের দিকে ইট -পাথর ছুঁড়ে আক্রমণ করে। ওই সময় এক ব্যক্তি পুলিশকে লক্ষ্য করে বোমা ছোঁড়ে বলে অভিযোগ। শনিবার, সিসিটিভি ফুটেজ দেখে তাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। সিপিএম এবং বিজেপি দু’পক্ষের নেতা-কর্মীর আক্রান্ত হওয়ার খবর পাওয়া গিয়েছে।
রাজ্য বিজেপি দাবি করেছে, তাদের কর্মী সমর্থকদের উপর আক্রমণ করছে সিপিএম ঘনিষ্ঠ দুষ্কৃতীরা। এর জন্য বিজয়ন সরকারকে ‘সাংবিধানিক খেসারত’ দিতে হবে বলে তোপ দেগেছে বিজেপি নেতৃত্ব। পাশাপাশি, রাজ্যজুড়ে ব্যাপক অশান্তি এবং হিংসার ঘটনায় রিপোর্ট চেয়েছে কেন্দ্র স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক। সাবরীমালা ইস্যু ঘিরে ক্রমান্বয়ে হিংসার ঘটনায় কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিংহ গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। বিজেপির সর্বভারতীয় মুখপাত্র জি ভি এল নরসিংহ রাও কেরলের মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়নকে নিশানা করে বলেন, এই উৎপীড়ন বন্ধ না হলে ব্যবস্থা নেবে কেন্দ্র। তিনি দাবি করেছেন, বিজেপি কর্মীদেরকে ‘টার্গেট’ করে আক্রমণ করছে শাসক দল। সিপিএম রাজ্য সম্পাদক কোডিয়ারি বালাকৃষ্ণণ পালটা দাবি করেছেন, আরএসএস পরিকল্পনা করে নিজেদের বিক্ষোভকে বিজেপি-সিপিএমের সংঘর্ষ বলে চালাতে চাইছে। রাজ্যের আইন-শৃঙ্খলা অবনতির জন্য আরএসএসকে সরাসরি দায়ী করেছেন সিপিএম রাজ্য সম্পাদক। কোডিয়ারি জানান, আরএসএসের গুণ্ডামির কাছে মাথা নোওয়াবে না সিপিএম সরকার।
সাবরীমালা মন্দির ইস্যুতে কর্মীদের ‘উৎসাহ’ দিতে বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ কেরলে যেতে পারেন বলে খবর। এপ্রসঙ্গে সিপিএম রাজ্য সম্পাদক মন্তব্য করেন, কেরলে অমিতের উপস্থিতি সিপিএম সংগঠনকে আরও মজবুত করতে সাহায্য করবে। তিনি অমিত শাহকে কটাক্ষ করে বলেন, যে রাজ্যেই বিজেপি সভাপতি সভা করছেন, সেখানেই বিজেপি হারছে। সাবরীমালা ইস্যুতে কংগ্রেসের অবস্থানেরও কড়া সমালোচনা করেছেন কোডিয়ারি।

Comments
Loading...