বিহারে বিধানসভা ভোট হলে বাংলায় পুরভোট নয় কেন, জানতে চাইল সুপ্রিম কোর্ট! কালী পুজোর পর সিদ্ধান্ত , জানাল রাজ্য

করোনা পরিস্থিতিতে পিছিয়ে গিয়েছে রাজ্যের পুরভোট। কিন্তু কবে কলকাতা সহ রাজ্যের শতাধিক পুরসভার ভোট? জানা গিয়েছে, কলকাতা সহ পশ্চিমবঙ্গের অন্যান্য পুরসভায় কবে ভোট করানো হবে, দীপাবলির পর সে বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে রাজ্য নির্বাচন কমিশন।

সম্প্রতি নির্বাচন কমিশনকে তলব করেছিল সুপ্রিম কোর্ট। জানতে চাওয়া হয়েছিল পুরভোটের বিষয়ে তাদের ভাবনা কী। যার প্রেক্ষিতে সোমবার সুপ্রিম কোর্টে রাজ্য নির্বাচন কমিশন জানিয়েছে, পশ্চিমবঙ্গে করোনা সংক্রমণ যথেষ্ট বৃদ্ধি পেয়েছে। তাই এই মুহূর্তে ভোট করা সম্ভব নয়। দীপাপলির পরে পরিস্থিতি যাচাই করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

গত মে মাসে কলকাতা পুরসভার বোর্ডের মেয়াদ শেষ হওয়ার আগের দিন রাজ্য সরকার মেয়র ফিরহাদ হাকিমকে চেয়ারম্যান করে পুরবোর্ডকে প্রশাসকমণ্ডলী হিসেবে স্বীকৃতি দিয়ে বিজ্ঞপ্তি জারি করে। তার পরেই সেই বিজ্ঞপ্তি চ্যালেঞ্জ করে, কলকাতা হাইকোর্টে একটি মামলা হয়। পুরসভার এই প্রশাসক বোর্ডকে বৈধ বলে কলকাতা হাইকোর্ট রায় দিলেও, তা চ্যালেঞ্জ করে সুপ্রিম কোর্টে মামলা হয় পরে। সেই মামলায় শুনানিতেই সোমবার শীর্ষ আদালত রাজ্য নির্বাচন কমিশনের কাছে জানতে চায়, ভোট করার মতো বর্তমানে পরিস্থিতি আছে কি না।

বর্তমান করোনা পরিস্থিতিতে শহরের কাজ যাতে আটকে না যায়, তা মাথায় রেখে পুরো প্রশাসক বোর্ডকে ‘কেয়ারটেকার বোর্ড’ হিসেবে চিহ্নিত করেছিল কলকাতা হাইকোর্ট। যদিও মামলাকারীরা কলকাতা হাইকোর্টের এই অন্তর্বর্তী নির্দেশে সন্তুষ্ট হতে পারেননি। মামলাকারী জনৈক  শরদ কুমার সিংহ এই রায় চ্যালেঞ্জ করে ডিভিশন বেঞ্চে যান। সেখানেও বিচারপতি ইন্দ্রপ্রসন্ন মুখোপাধ্যায়ের ডিভিশন বেঞ্চ সিঙ্গল বেঞ্চের রায় বহাল রাখে।

কিন্তু সুপ্রিম কোর্ট এ ব্যাপারে হস্তক্ষেপ না করে, ফের মামলা ফিরিয়ে দেয় হাইকোর্টে। সম্প্রতি বিচারপতি সঞ্জীব বন্দ্যোপাধ্যায় ডিভিশন বেঞ্চ পুরো প্রশাসক বোর্ডের বৈঠককে স্বীকৃতি দেয়। তবে ডিভিশন বেঞ্চ তার রায়ে দ্রুত নির্বাচন করার পক্ষেও পরামর্শ দেয় রাজ্য নির্বাচন কমিশনকে। সেই রায় চ্যালেঞ্জ করে ফের মামলাকারী গিয়েছিলেন সুপ্রিম কোর্টে। গত শুনানিতে সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসক বোর্ডের বৈধতা সম্পর্কে কোনও শুনানিতে না ঢুকেই, সরাসরি রাজ্য নির্বাচন কমিশনকে তলব করে। করোনার মধ্যে যদি বিহারে ভোট করানো যায়, তা হলে এ রাজ্যে পুরভোট করতে সমস্যা কোথায়? এ প্রশ্নও তোলে শীর্ষ আদালত। তাতে কমিশনের আইনজীবী যুক্তি দেন, বিহারে বিধানসভা নির্বাচন ঘোষণা হলেও সেখানকার পরিস্থিতি পশ্চিমবঙ্গের থেকে আলাদা। রাজ্যে একটি বিধানসভা উপনির্বাচন হওয়ার কথা ছিল। তাও স্থগিত হয়ে আছে। কলকাতা পুরসভার আইনজীবী কল্যাণ ব্যানার্জি জানান, এ বিষয়ে বাকিদের কোনও বক্তব্য থাকলে তা চার সপ্তাহের মধ্যে জানাতে বলেছে সুপ্রিম কোর্ট। ৮ ডিসেম্বর ফের শুনানি রয়েছে এই মামলার।

 

Comments
Loading...