কোটিপতির সংখ্যার নিরিখে দেশে ষষ্ঠ স্থানে কলকাতা, সবচেয়ে ধনী বেণুগোপাল বাঙুর

পর পর ৮ বছর দেশের ধনীতম ব্যক্তির শিরোপা উঠেছে যে মুকেশ আম্বানীর মাথায়, তিনি থাকেন মুম্বইয়ে। ২৫ শে সেপ্টেম্বর প্রকাশিত হুরান ইন্ডিয়া রিচ লিস্টে দেশের বাণিজ্যিক রাজধানী মুম্বইয়ে বসবাসকারী কোটিপতির সংখ্যা বেড়েছে লক্ষ্যণীয়ভাবে। তারপর রয়েছে যথাক্রমে দিল্লি এবং বেঙ্গালুরু। কিন্তু তাৎপর্যপূর্ণ ব্যাপার হল, গতবার যেখানে দেশের ৫৯ শতাংশ ধনীদের আস্তানা ছিল দেশের এই ৩ শহর, সেখানে ২০১৯ সালে তা কমে এসেছে ৩৬ শতাংশে। অথচ দেশে কোটিপতির সংখ্যা কমেনি।

হুরান রিপোর্ট বলছে, ২০১৯ সালে মুম্বইয়ে বসবাসকারী অতি ধনীদের সংখ্যা ২৪৬। গতবারের চেয়ে বাণিজ্য নগরীতে অতি ধনী বেড়েছে ১৩ জন। একইভাবে রাজধানী দিল্লিতে এবছর বসবাসকারী অতি ধনীর সংখ্যা ১৭৫। গতবারের চেয়ে ১২ জন অতি ধনী বেড়েছে দিল্লিতে। বেঙ্গালুরুতে ৭৭ জন অতি ধনী ব্যক্তি বাস করেন। গতবারের চেয়ে বেড়েছে ৭ জন। তবে অতি ধনীর সংখ্যার নিরিখে বাকিদের চেয়ে খুব পিছিয়ে নেই কলকাতাও।

আইআইএফএল ওয়েল্থ হুরান ইন্ডিয়া রিচ লিস্ট ২০১৯ এ অতি ধনীর সংখ্যার নিরিখে চেন্নাই, পুণে, নয়ডা, গুরুগ্রামের মতো তাবড় শহরকে পিছনে ফেলে দিয়েছে কলকাতা। তালিকায় মুম্বই, দিল্লি, বেঙ্গালুরু, হায়দরাবাদ এবং আমেদাবাদের পরেই স্থান কলকাতার। তালিকা বলছে, কার্যত আমেদাবাদের ঘাড়ের কাছে নিঃশ্বাস ফেলছে কলকাতা। কলকাতায় মোট ৪০ জন অতি ধনী ব্যক্তি থাকেন। গতবারের চেয়ে কলকাতাবাসী সুপার রিচের সংখ্যা বেড়েছে ১২ জন। হুরান ইন্ডিয়ার তালিকা বলছে, কলকাতা শহরের সবচেয়ে ধনী ব্যক্তির নাম বেণুগোপাল বাঙুর। আমেদাবাদে মোট ৪৯ জন অতি ধনী থাকেন। গতবারের চেয়ে এই সংখ্যা বেড়েছে মাত্র একটি। আমেদাবাদের সবচেয়ে ধনী ব্যক্তির নাম গৌতম আদানি। কলকাতার ঠিক পরে, সপ্তম স্থানে রয়েছে চেন্নাই।

শুধু শহরকেন্দ্রিক হিসেবই নয়, হুরান ইন্ডিয়া রাজ্যভিত্তিক পর্যালোচনাও করেছে। তাতে দেখা যাচ্ছে, সবচেয়ে বেশি অতি ধনী ব্যক্তি বাস করেন মহারাষ্ট্রে। সপ্তম স্থানে রয়েছে পশ্চিমবঙ্গ। হুরানের তালিকা অনুযায়ী, বাংলায় এবছর ৪১ জন অতি ধনী ব্যক্তি বসবাস করছেন। গতবারের চেয়ে এই সংখ্যা বেড়েছে ১৩ জন। হুরানের রিপোর্টে বাংলার পরে রয়েছে কেরল, হরিয়ানা, উত্তর প্রদেশ, পাঞ্জাবের মতো রাজ্য।

প্রতিবছরই প্রকাশিত হয় আইআইএফএল ওয়েল্থ হুরান ইন্ডিয়া রিচ লিস্ট। ২৫ শে সেপ্টেম্বর প্রকাশিত হয়েছে তাদের ২০১৯ এর তালিকা। সেই তালিকায় ভারতের ব্যক্তিগত সম্পদ বৃদ্ধির চুলচেরা বিশ্লেষণ করা হয়েছে। এই তালিকায় এবারও প্রথম স্থানে রয়েছেন রিলায়েন্স কর্ণধার মুকেশ আম্বানী। তাঁর সম্পত্তির পরিমাণ ৩,৮০,৭০০ কোটি টাকা। রিপোর্ট বলছে, তালিকার প্রথম ২৫ জনের মিলিত সম্পদের পরিমাণ দেশের জিডিপির ১০ শতাংশ।

Comments
Loading...