নারী নিরাপত্তায় শীর্ষে কলকাতা, রাজ্যের রিপোর্টে সায় কেন্দ্রের 

বুধবার সংসদীয় কমিটির বৈঠকে বাংলার ভূয়সী প্রশংসা করেন চেয়ারম্যান

সারা দেশের মধ্যে নিরাপদ শহর কলকাতা। নারী নিরাপত্তায় শীর্ষে এই শহর। বুধবার সংসদীয় কমিটির বৈঠকে রাজ্যের এই দাবিতে সায় দিল অমিত শাহের কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক। সংশ্লিষ্ট বৈঠকে রাজ্যের মুখ্যসচিব আলাপন ব্যানার্জির পেশ করা রিপোর্ট খতিয়ে দেখে সন্তোষ প্রকাশ করার পাশাপাশি স্বরাষ্ট্র সংক্রান্ত সংসদীয় কমিটির চেয়ারম্যান আনন্দ শর্মা বাংলাকে সংস্কৃতি এবং শিক্ষায় পথপ্রদর্শক হিসেবে চিহ্নিত করেন।

পশ্চিমবঙ্গের নারী নিরাপত্তা সংক্রান্ত রিপোর্ট চেয়ে দিল্লি তলব করা হয়েছিল রাজ্যের মুখ্যসচিব আলাপন ব্যানার্জি, স্বরাষ্ট্র সচিব হরিকৃষ্ণ দ্বিবেদী ও রাজ্য পুলিসের ডিজি বীরেন্দ্রকে। সেই অনুযায়ী, নবান্নের তরফে ‘পিস টু প্রসপারিটি’ শিরোমামে ৪২ পৃষ্ঠার একটি রিপোর্ট পেশ করা হয়। যা দেখে বাংলার কাজের ভূয়সী প্রশংসা করে স্বরাষ্ট্র সংক্রান্ত সংসদীয় কমিটি।

বাংলার পাশাপাশি হরিয়ানা রাজ্যেরর নারী ও শিশু নিরাপত্তা সংক্রান্ত রিপোর্ট তলব করেছিল সংসদীয় কমিটি। সেখানে বিজেপি শাসিত হরিয়ানার রিপোর্ট যথেষ্ট উদ্বেগজনক বলে মত দেয় কেন্দ্রীয় কমিটি। দেখা গিয়েছে, নারী নির্যাতনকারীদের বিরুদ্ধে চার্জশিটের জাতীয় গড় যেখানে ৬১ শতাংশ, বাংলায় তা ৯৪ শতাংশ। ধর্ষণের মতো গুরুতর অপরাধের জাতীয় গড় ৪.৯। সেখানে বাংলায় এই হার ২.২ শতাংশ। তুলনামূলক ভাবে হরিয়ানায় এই হার ১০ শতাংশেরও কিছু বেশি।

সূত্রের খবর, প্রায় দু’ঘণ্টার এই বৈঠকে বিজেপি সাংসদরা এ রাজ্যে রাজনৈতিক সন্ত্রাসের দিকে আঙুল তোলে। যদিও তৃণমূলের তরফে উপস্থিত কাকলি ঘোষদস্তিদার এর তীব্র প্রতিবাদ করেন। উল্টে তিনি অভিযোগ করেন, বাংলায় গোলমাল পাকানোর চেষ্টা করছে একটি বিশেষ রাজনৈতিক দল। জানা গিয়েছে, কড়া আইন থাকা সত্ত্বেও নারী নির্যাতনের ঘটনা কেন থামছে না, তা নিয়ে বিশেষ গবেষণার জন্য কমিটিকে প্রস্তাব দেন তৃণমূলের দীনেশ ত্রিবেদী। সাইবার অপরাধ সংক্রান্ত পৃথক একটি মন্ত্রক তৈরির কথাও বলেন তিনি। এই প্রস্তাব সমর্থন করেছেন সংসদীয় কমিটির চেয়ারম্যান।

 

Comments
Loading...