দেওয়া হল কনস্যুলার অ্যাকসেস, পাকিস্তানের জেলে বন্দি কুলভূষণ যাদবের সঙ্গে দেখা করলেন ভারতের ডেপুটি হাইকমিশনার

পাকিস্তানের জেলে বন্দি কুলভূষণ যাদবের সঙ্গে সাক্ষাত করলেন ভারতীয় কূটনীতিকরা। গত ১৭ ই জুলাই আন্তর্জাতিক ন্যায় আদালত গুপ্তচরবৃত্তি ও সন্ত্রাসবাদের অভিযোগে পাকিস্তানে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত প্রাক্তন নৌ আধিকারিক কুলভূষণ যাদবকে কনস্যুলার অ্যাকসেস দেওয়ার ব্যাপারে এবং তাঁর মৃত্যুদণ্ডের পর্যালোচনা করতে পাকিস্তানকে নির্দেশ দিয়েছিল। সূত্রের খবর, এরপর সোমবার প্রথমবার কূলভূষণের সঙ্গে দেখা করেন ডেপুটি হাইকমিশনার গৌরব অহলুওয়ালিয়া।
দীর্ঘদিন ধরে কুলভূষণ যাদবকে কনস্যুলার অ্যাকসেস দেওয়ার চেষ্টা চালাচ্ছিল ভারত। আন্তর্জাতিক ন্যায় আদালতও ইসলামাবাদকে এ ব্যাপারে নির্দেশ দেওয়ার পর দীর্ঘ দেড় মাস কেটে গিয়েছে। নানা অছিলায় কুলভূষণের সঙ্গে দেখা করতে ভারতকে কনস্যুলার অ্যাকসেস দেয়নি পাকিস্তান। অবশেষে রবিবার পাকিস্তান বিদেশ মন্ত্রকের তরফে একটি ট্যুইটে জানানো হয়, কুলভূষণকে কনস্যুলার অ্যাকসেস দেওয়া হচ্ছে। সোমবার কুলভূষণের সঙ্গে দেখা করার সুযোগ মেলে ভারতীয় কূটনীতিকের। যা ভারতের কূটনৈতিক জয় হিসেবেই দেখা হচ্ছে।
২০১৬-এর মার্চে ৪৯ বছর বয়সী কুলভূষণ যাদবকে গ্রেফতার করে পাকিস্তান। তাঁর বিরুদ্ধে গুপ্তচরবৃত্তির অভিযোগ আনা হয়, যদিও তা খারিজ করে দেয় ভারত। ভারতের তরফে বলা হয়, ভারতীয় নৌবাহিনী থেকে অবসরের পর, ইরানে ব্যবসার কাজে গিয়েছিলেন কুলভূষণ যাদব, সেখান থেকে তাঁকে অপরহরণ করা হয়। এর একবছর পর, কুলভূষণ যাদবকে মৃত্যুদণ্ডের সাজা দেয় পাকিস্তানের সামরিক আদালত। প্রাক্তন নৌসেনা আধিকারিকের মৃত্যুদণ্ডের সাজা ঘোষণার একমাস পরে, এই রায়কে চ্যালেঞ্জ করে দ্য হেগের আন্তর্জাতিক ন্যায় আদালতের দ্বারস্থ হয় ভারত। গত ১৭ ই জুলাই, দ্য হেগের আন্তর্জাতিক আদালত কুলভূষণের মৃত্যুদণ্ডের রায় পুনর্বিবেচনা করার জন্য এবং তাঁকে ভারতের কূটনৈতিক সহায়তা দেওয়ার জন্য পাকিস্তানকে নির্দেশ দেয়। যদিও এরপরেও পাকিস্তান শর্ত চাপায়, ইসলামাবাদে ভারতীয় হাই কমিশনারের প্রতিনিধির সঙ্গে কুলভূষণের দেখা করার সময় সেখানে তাদের প্রতিনিধিও উপস্থিত থাকবেন। এই শর্ত খারিজ করে দেয় ভারত।

Comments
Loading...