‘আমরা খারাপ শুভেন্দু আর মুকুলরা ভালো’ সিবিআইয়ের গ্রেফতারি নিয়ে কটাক্ষ মদন মিত্রের

সোমবার দিনভর নাটকীয় ঘটনাপ্রবাহের পর নিজাম প্যালেস থেকে বেরোনোর সময়  বিজেপির বিরুদ্ধে ফের একই অভিযোগ করলেন রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী তথা বর্তমানে কামারহাটির বিধায়ক মদন মিত্র

সোমবার রাজ্যের দুই হেভিওয়েট মন্ত্রী, এক বিধায়ক সহ এক প্রাক্তন তৃণমূল নেতার গ্রেফতারির পরেই তৃণমূলের তরফে প্রশ্ন তোলা হয়েছিলো, নারদ কাণ্ডে অভিযুক্ত অন্য দুই বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারী, মুকুল রায়কে গ্রেফতার করা হল না কেন?

সোমবার দিনভর নাটকীয় ঘটনাপ্রবাহের পর নিজাম প্যালেস থেকে বেরোনোর সময়  বিজেপির বিরুদ্ধে ফের একই অভিযোগ করলেন রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী তথা বর্তমানে কামারহাটির বিধায়ক মদন মিত্র। নিজাম প্যালেসের সিঁড়ি দিয়ে নামতে নামতে কটাক্ষের সুরে সংবাদমাধ্যমকে জানান, ‘আমরা খারাপ শুভেন্দু আর মুকুলরা ভালো’ ।
এদিন জামিনের শুনানির সময়ও ধৃতদের আইনজীবী বলেন, নারদ মামলায় অভিযুক্ত ছিলেন তৎকালীন তৃণমূল নেতা বর্তমানে বিজেপির দুই হেভিওয়েট শুভেন্দু অধিকারী এবং মুকুল রায় তাঁদেরকে গ্রেফতার করা হল না, বেছে বেছে শুধু তৃণমূলের লোকেদের গ্রেফতার করা হচ্ছে।

সোমবারের গ্রেফতারি নিয়ে নাম না করে সিবিআইয়ের বিরুদ্ধে একই অভিযোগ তোলেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরী। বলেন, কাউকে ধরা হবে, কাউকে ছাড়া হবে এভাবে তদন্ত চলতে পারে না।

সোমবার সকালে রাজ্যের চার হেভিওয়েট নেতাকে গ্রেফতারের পর সারাদিন টানটান উত্তেজনার সাক্ষী থাকল রাজ্যবাসী। দুই মন্ত্রী, এক বিধায়ক সহ এক প্রাক্তন তৃণমূল নেতার গ্রেফতারির প্রতিবাদ জানিয়ে সোজা নিজাম প্যালেসে পৌঁছে যান মুখ্যমন্ত্রী। সিবিআই কর্তাদের চ্যালেঞ্জ করেন তাঁকেও গ্রেফতার করতে হবে। অবশেষে শুনানি শুরু হলে দীর্ঘ ৬ ঘন্টা পরে নিজাম প্যালেস ছাড়েন মুখ্যমন্ত্রী।

নিম্ন আদালতের শুনানিতে চারজনই জামিন পান। বাইরে অপেক্ষারত তৃণমূল কর্মীদের মধ্যে তখন উৎসবের মেজাজ। কিন্তু পরক্ষনেই পরিস্থিতির নাটকীয় পরিবর্তন হয়। তৃণমূলের আইনজীবী জানান রিলিজ অর্ডার দিলেও চার নেতাকে অপেক্ষা করতে বলছে সিবিআই।
নিম্ন আদালতের রায়কে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে কার্যত মাঝ রাতে হাইকোর্টে যায় সিবিআই। হাইকোর্ট ওই চার নেতার জামিনে স্থগিতাদেশ দেয়। মাঝরাতেই তাঁদের নিয়ে যাওয়া হয় প্রেসিডেন্সি জেলে।

Comments
Loading...