সুব্রত, ফিরহাদের গ্রেফতারির তীব্র প্রতিবাদ, ট্যুইটে সরব মহুয়া, সায়নী, যশবন্ত সিনহা

কংগ্রেসের অভিষেক মনু সিঙ্ঘভি এবং মুখার্জি সরাসরি গ্রেফতারিকে রাজনৈতিক উদ্দেশ্য প্রণোদিত বলে উল্লেখ করেছেন

সুব্রত মুখার্জি, ফিরহাদ হাকিম, মদন মিত্রর গ্রেফতারির তীব্র প্রতিবাদ জানালেন তৃণমূল সাংসদ মহুয়া মৈত্র। কটাক্ষ করলেন রাজ্যপাল ধনখড়কে।

সোমবার দুপুর ২.৩০ নাগাদ ট্যুইট করেন মহুয়া। লেখেন, ভোরবেলা বিশাল CAPF নিয়ে গিয়ে রাজ্যের দুই সিনিয়র মন্ত্রীকে গ্রেফতার করল সিবিআই। এটা একেবারেই বেআইনি কাজ।
গ্রেফতারের সময় বিধানসভার অধ্যক্ষের থেকে অনুমতি নেওয়া হয়নি। সেই সঙ্গে মহুয়া আরও লেখেন, রাজ্যপাল বলছেন যে তিনি ৯ তারিখ অনুমতি দিয়েছেন। শপথ গ্রহণ হয় ১০ মে।

তৃণমূলের সিনিয়ার নেতা তথা প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী যশবন্ত সিনহা। তাঁর প্রশ্ন, এভাবে কোনও রাজ্যের বিরুদ্ধে কেন্দ্রীয় সরকার যুদ্ধ ঘোষণা করতে পারে কি? বাংলায় ঠিক তাই হচ্ছে।

গ্রেফতারি নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারকে ট্যুইটে তীব্র কটাক্ষ করেন অভিনেতা তথা এবারের নির্বাচনে তৃণমূল প্রার্থী সায়নী ঘোষ।

রাজ্যপাল ও কেন্দ্রীয় সরকারকে একযোগে বিঁধে আক্রমণ শানান সায়নী। ট্যুইটে তাঁর কটাক্ষ, বাংলায় প্রশাসনিক কাজ ব্যাহত করতে রাতদিন একজন চেষ্টা করে যাচ্ছেন। রাজ্যপালকে উদ্দেশ্যে করে তাঁর আরও টিপ্পনী, একজনের স্বপ্ন কোনও একদিন রাজ্যে রাষ্ট্রপতি শাসন ব্যবস্থা কায়েম হবে, এবং তিনি মর্জি মত রাজ্য চালাবেন।
নাম না করে বিজেপিকে উদ্দেশ্যে করে অভিনেতা বলেন, প্রথমে ওরা চেষ্টা করল প্রধানমন্ত্রীর শাসন কায়েম করতে কিন্তু সে কাজে ‘২১৩’% ব্যর্থ হয়ে এখন প্রার্থনা করছেন রাষ্ট্রপতি শাসনের।
শেষে সায়নীর চ্যালেঞ্জ, আমরাও দেখে নেব।

কংগ্রেসের অভিষেক মনু সিঙ্ঘভি এবং মুখার্জি সরাসরি গ্রেফতারিকে রাজনৈতিক উদ্দেশ্য প্রণোদিত বলে উল্লেখ করেছেন।

Comments
Loading...