ভুবনেশ্বরে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের সঙ্গে বৈঠক মমতার, থাকবেন পূর্বাঞ্চলের পাঁচ মুখ্যমন্ত্রীও

আগামিকাল, শুক্রবার ভুবনেশ্বরে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ বৈঠকে বসছেন পূর্বাঞ্চলের পাঁচ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে। পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি ওই বৈঠকের জন্য মঙ্গলবার বিকেলেই ভুবনেশ্বরে চলে গিয়েছেন। সেখান থেকে তিনি বুধবার সন্ধ্যায় পুরী যান। জগন্নাথের মন্দিরে তিনি পুজোও দেন। পরে মমতা সাংবাদিকদের বলেন, দিল্লির ঘটনায় আমি খুবই বিচলিত। আমার মন কাঁদছে। সকলের মঙ্গলের জন্য, দেশের জন্য শান্তি কামনায় আমি আজ পুজো দিলাম। দিল্লির ঘটনা নিয়ে তৃণমূল নেত্রী এদিন একটি কবিতাও লিখেছেন ফেসবুকে। ‘নরক’ নামে ওই কবিতার ইংরেজি এবং হিন্দি অনুবাদও করা হয়েছে। তিনি লিখেছেন, ‘হোলির আগেই রক্তের হোলি। মনুষ্যত্ব বড় করুণ।’
বহুদিন পরে মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি কেন্দ্রের ডাকা বৈঠকে যোগ দিচ্ছেন। এর আগে তিনি আন্তঃরাজ্য পরিষদের বৈঠকে যোগ দেননি। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক ওই বৈঠকে পূর্বাঞ্চলের পাঁচ মুখ্যমন্ত্রীকে ডেকেছেন। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী নিজে চিঠি লিখে মমতা-সহ অন্য মুখ্যমন্ত্রীদের আমন্ত্রণ জানিয়েছেন। স্বাভাবিক ভাবেই শুক্রবারের ওই বৈঠক নিয়ে রাজনৈতিক শিবিরে কৌতূহল রয়েছে যথেষ্ট। দেশের সাম্প্রতিক পরিস্থিতি, দিল্লির হিংসা, সিএএ, এনআরসি, এনপিআর নিয়ে মমতা বৈঠকে কিছু বলেন কি না, তা নিয়ে জল্পনা চলছে। আন্তঃরাজ্য পরিষদের বৈঠকের ফাঁকে অমিত শাহের সঙ্গে মমতা আলাদা করে কথা বলবেন কি না, জল্পনা রয়েছে সেই বৈঠকের সম্ভাবনা নিয়েও। দিল্লির হিংসা নিয়ে কংগ্রেস, বামেরা এবং অন্য বিরোধী দলগুলি বিজেপি, কেন্দ্রীয় সরকার এবং দিল্লির সরকারকে বিঁধলেও মমতা কারও বিরুদ্ধে তোপ দাগেননি। কংগ্রেস ও বামেরা যেখানে এই দিল্লির দাঙ্গার জন্য বিজেপিকেই দায়ী করছেন, কংগ্রেস সভানেত্রী যেখানে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর ইস্তফা দাবি করেছেন, মমতা কিন্তু সে সবের ধারকাছ দিয়ে যাননি। মঙ্গলবার ভুবনেশ্বরে যাওয়ার পথে কলকাতা বিমানবন্দরে তিনি বলেন, আমি উদ্বিগ্ন। কে বা কারা এ সব করছে, আমি কিছুই জানি না।
এর আগে অমিত শাহ সিএএ, এনআরসি নিয়ে রাজ্যগুলিকে দিল্লিতে ডেকেছিলেন। সিএএ-র বিরোধিতা করা সব রাজ্যই সেখানে প্রতিনিধি পাঠায়। অনেক মুখ্যমন্ত্রীও যান। একমাত্র মমতা দিল্লির ওই বৈঠক বয়কট করেছিলেন। আবার গত বছর দ্বিতীয়বারের জন্য প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পরে নরেন্দ্র মোদী দিল্লিতে রাজ্যগুলির মুখ্যমন্ত্রীদের যে বৈঠক ডেকেছিলেন, তাতেও যাননি মমতা। তাঁর মন্তব্য ছিল, কী হবে বৈঠকে গিয়ে? কাউকে কিছু বলতে দেওয়া হয় না। এই আবহে শুক্রবার অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তা নিয়ে আন্তঃরাজ্য পরিষদের বৈঠকে মমতার অংশগ্রহণ এবং তিনি কী বলেন, তার দিকে তাকিয়ে রয়েছে রাজনৈতিক মহল। ভুবনেশ্বরের ওই বৈঠকের একদিন পরেই, রবিবার অমিত শাহ কলকাতায় আসছেন। তিনি শহিদ মিনার ময়দানে বিজেপির সভায় ভাষণ দেবেন। শাহের সঙ্গে মমতার দ্বিপাক্ষিক বৈঠকের সম্ভাবনা সম্পর্কে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেন, আমি তো এই ধরনের বৈঠক হলে খারাপ কিছু দেখছি না। ভালো করে প্রশাসন চালানোর জন্য একটি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক করতেই পারেন।

Comments
Loading...