মোদী সরকারের ‘এক্সপেয়ারি ডেট’ পেরিয়ে গিয়েছে। এখন শেষ পর্যায়ে এসে মিসাইল, বন্দুক দেখিয়ে উন্নয়ন জাহির করছে বিজেপি, কটাক্ষ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। বুধবার হাওড়ার আরুপাড়ার এক অনুষ্ঠানে মমতা বলেন, সেনা থেকে সাধারণ মানুষের পাশে আছেন তাঁরা, শুধু মোদীবাবুর পাশে নেই। মমতার কথায়, ‘আমরা দেশের পক্ষে, দশের পক্ষে, মোদীর পক্ষে নেই, বিজেপির পক্ষে নেই।’ বিজেপি সরকারকে আক্রমণ করে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘ওরা গেলে দেশ বাঁচবে’।
হাওড়ার আরুপাড়ায় রাজ্যের প্রথম হিন্দি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন সহ একগুচ্ছ প্রকল্পের শিলান্যাস করেন মুখ্যমন্ত্রী। সেখানেও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে বিঁধলেন তিনি। মমতা বলেন, তিনি বিশেষ বিশেষ প্রকল্পের উদ্বোধনে যান। একসঙ্গে অনেকগুলি প্রকল্পের সূচনা করলে বিজ্ঞাপনের খরচও অনেকটা কমে যায়। এরপরেই প্রধানমন্ত্রীকে খোঁচা দিয়ে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, একটা ‘বাথরুম’ উদ্বোধন করার জন্যও হাজির হন প্রধানমন্ত্রী। কারণ ‘মোদীবাবু’ কেবল প্রচার চান, কটাক্ষ মমতার। মুখ্যমন্ত্রী প্রশ্ন তোলেন, এত ‘পাবলিসিটি’ কীসের দরকার। কাজ করলে এমনিতেই পাবলিসিটি হয়। একই সঙ্গে নরেন্দ্র মোদীর সমর্থনে দেশের হিন্দি চ্যানেলগুলি মিথ্যে প্রচার করে অভিযোগ করেন মুখ্যমন্ত্রী। মমতার অভিযোগ, দেশের হিন্দি ন্যাশনাল চ্যানেলগুলিকে কিনে নিয়েছে বিজেপি।
হাওড়ায় রাজ্যের প্রথম হিন্দি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিলান্যাস করতে গিয়ে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ২০১১ সাল থেকে ২০১৯ পর্যন্ত ২৯ টি বিশ্ববিদ্যালয় তৈরি করেছে তাঁর সরকার। আরও ১০ টি বিশ্ববিদ্যালয় গড়ার কথা ভাবা হচ্ছে। আরুপাড়ায় হিন্দি বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্য দুটি ক্যাম্পাস উত্তরবঙ্গ ও আসানসোলে তৈরি হবে বলে ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী। রাজ্যের যুবশ্রী প্রকল্পের পর যুবশ্রী অর্পণ নামে আরও একটি প্রকল্প এদিন ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী। এই প্রকল্পে বেকার যুবকরা ব্যবসার জন্য এক লক্ষ টাকা করে সাহায্য পাবেন বলে জানান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

You may also like