মথুরাপুরে চিটফান্ড মালিকের জমিতে মোদীর সভা, চাঞ্চল্যকর অভিযোগ তুলে পুলিশি তদন্তের নির্দেশ মুখ্যমন্ত্রীর

বৃহস্পতিবার মথুরাপুরে যে মাঠে মোদীর সভা, তার মালিক একজন অনুমোদনহীন মাইক্রো ফিনান্স সংস্থা চালান। মানুষের কোটি কোটি টাকা লুঠ করে বিজেপিকে ভাগ দিয়েছেন। সমস্ত তথ্য পুলিশের হাতে তুলে দিচ্ছি, তদন্ত শুরু হোক। মথুরাপুরের মন্দিরবাজারের সভা থেকে চাঞ্চল্যকর অভিযোগ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। তাঁর কটাক্ষ, যে মাঠে দাঁড়িয়ে মোদীবাবু সারদা-নারদা নিয়ে ভাষণ দিচ্ছেন, তার মালিক নিজেই চিটফান্ডের মাথা। বিজেপি কি সেই টাকার ভাগ পাচ্ছে? প্রশ্ন মমতার।

নির্বাচন কমিশন নজিরবিহীনভাবে রাজ্যে প্রচারের সময় কমিয়ে দেওয়ার জেরে নির্বাচনী প্রচার কর্মসূচিতে বদল আনেন মমতা। বৃহস্পতিবার সকালে তিনি মথুরাপুর কেন্দ্রের প্রার্থী চৌধুরী মোহন জাটুয়ার সমর্থনে জনসভা করেন। সেখানেই নাম ধরে তাঁর অভিযোগ, নরেন্দ্র মোদী যে মাঠে সভা করছেন, সেই মাঠের মালিক একজন বেআইনি মাইক্রো ফিনান্স সংস্থা চালিয়ে আশেপাশের এলাকা থেকে কোটি কোটি টাকা তুলেছেন। সেই পাপের টাকার ভাগ বিজেপির পকেটে যাচ্ছে, অভিযোগ মমতার। মঞ্চেই একজন পুলিশ কর্মচারিকে ডেকে সমস্ত কাগজপত্র তুলে দেন তৃণমূল নেত্রী। নাম না করে মোদীকে কটাক্ষ করে মমতা বলেন, সারদা-নারদা নিয়ে এবার বড়দা কী বলবেন?

এদিকে বৃহস্পতিবারই উত্তর প্রদেশের জনসভা থেকে মোদী ঘোষণা করেছেন, বিদ্যাসাগর কলেজের ওই একই জায়গায় পঞ্চধাতু দিয়ে বিশাল মূর্তি তৈরি করে দেওয়া হবে। মথুরাপুরের জনসভা থেকে মোদীর সেই ঘোষণাকেও তীব্র আক্রমণ করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বলেন, মূর্তি বানিয়ে দিলেই হয়ে যায়? ভাবেন কী নিজেকে? পারবেন বাঙালির ২০০ বছরের ঐতিহ্যকে ফিরিয়ে দিতে? বাংলা আপনার ভিক্ষা চায় না। তাঁর হুঁশিয়ারি, মণিষীদের গায়ে হাত পড়লে রেয়াত করব না। আপনাকেই স্ট্যাচু বানাবে বাঙালি।

বিজেপি বিভিন্ন কৌশলে সাম্প্রদায়িক সংঘর্ষ লাগানোর মরিয়া চেষ্টা করছে বলে মথুরাপুরে অভিযোগ করেন মমতা। মানুষকে সতর্ক থাকার পরামর্শ দিয়ে মমতা বলেন, প্রমাণ সহ এমন খবর দিতে পারলে, দল থেকে তাঁকে পুরস্কার দেওয়া হবে। গড়ে দেওয়া হবে ভবিষ্যত। মমতার দাবি, জনতাই তাঁর পাহারাদার। পাশাপাশি যাঁরা বিজেপির মিটিং-মিছিলে যাচ্ছেন তাদের উদ্দেশে মমতা বলেন, পাড়ায় গদ্দার বলে চিহ্নিত হয়ে যাচ্ছেন। বিজেপির দেওয়া ৫ হাজার টাকায় সারাজীবন চলবে? এখন বুঝছেন তো বাংলার সঙ্গে বিজেপির সংস্কৃতি মেলে না। তাদের বিজেপি ছেড়ে দিয়ে জবাব দেওয়ারও আহ্বান জানান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তৃণমূল নেত্রী বলেন, নরেন্দ্র মোদী ইতিমধ্যেই হেরে বসে আছেন। বাংলাই দিল্লি গড়বে, তাই বাংলাকে এত ভয় মোদীর।

Comments
Loading...