জেতার পর আসানসোলকে কী দিয়েছ, বাংলাকে কী দিয়েছ? নাম না করে বাবুল সুপ্রিয়কে কটাক্ষ মমতা ব্যানার্জির

রানিগঞ্জের সভা থেকে স্থানীয় সাংসদ বাবুল সুপ্রিয়র কাজের হিসেব চাইলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। নাম না করে তীব্র কটাক্ষে বিঁধলেন বিজেপির তারকা সাংসদকে। বললেন, আসানসোলে জেতার পর কী দিয়েছ? বাংলাকে কী দিয়েছ? তারপরই মমতার কটাক্ষ, শুধু ভোট এলে এই দেবো, সেই দেবো বলে ভাষণ!
আসানসোলের বিজেপি সাংসদ বাবুল সুপ্রিয় মমতা ব্যানার্জির অন্যতম সমালোচক। ট্যুইট বা সংবাদমাধ্যমে মন্তব্য, তৃণমূলকে বরাবর বিঁধেছেন বাবুল। এবার তাঁর নির্বাচনী কেন্দ্রে দাঁড়িয়ে বাবুল সুপ্রিয়কে তীব্র আক্রমণ শানালেন মমতা ব্যানার্জি। চাইলেন কাজের হিসেব।
রানিগঞ্জের সভা থেকে মুখ্যমন্ত্রী উন্নয়নের খতিয়ান দেওয়ার পাশাপাশি আগাগোড়া তোপ দাগেন কেন্দ্রের মোদী সরকারের দিকে। সরকারি সংস্থা বিক্রি নিয়ে মমতা বলেন, রেল, সেলকে বিক্রি করে দিচ্ছে কেন্দ্রীয় সরকার। এই সরকার কৃষকদের ফসল কেড়ে নিচ্ছে। শ্রমিকদের কোম্পানি বন্ধ হয়ে গেলে হাজার হাজার শ্রমিক খাবেন কী? অফিসারেরা কীভাবে বেছে থাকবেন? মমতা ব্যানার্জি বলেন, প্রাণ যায় যাক তাও রেল বিক্রি করতে দেবো না। কয়লাখনি বেসরকারিকরণ করতে দেবো না। মুখ্যমন্ত্রীর অভিযোগ, সব কয়লা মাফিয়া এখন বিজেপির সঙ্গে। বিজেপির টাকার অভাব নেই। তাই বাইরে থেকে লোক ঢুকিয়ে দাঙ্গা আর টাকা ছড়ানো চলছে।
মমতার অভিযোগ, বিহার ভোটের দিকে তাকিয়ে ফ্রি রেশন দিচ্ছিল মোদী সরকার। বিহার দখল হতেই তা বন্ধ। কিন্তু বাংলায় আগামী বছরের জুন মাস পর্যন্ত ফ্রি রেশন দেওয়া হবে। মুখ্যমন্ত্রী বলেন, আমাদের সরকারি থাকবে তাই ফ্রি রেশন জারি থাকবে, চিন্তার কিছু নেই। মুখ্যমন্ত্রী বলেন, আমি কেউ না। আপনাদের মতোই একটি সাধারণ পরিবার থেকে এসেছি। এই সরকারটা আমার একার নয়, আপনাদের সবার।
এদিন কৃষকদের ডাকা ভারত বনধকে সমর্থন জানিয়ে মমতা বলেন, হরতাল ছিল ৩ টে পর্যন্ত, আমি তাই স্টেজে উঠেছি ৩ টের পর। সরকার হিসেবে ধর্মঘট আমাদের নীতিতে নেই। কিন্তু দল হিসেবে তৃণমূল কৃষকদের দাবির সঙ্গে সম্পূর্ণ সহমত। ১০ তারিখ গান্ধী মূর্তিতে তিনি নিজে হাজির থাকবেন বলেও জানিয়েছেন।

Comments
Loading...