‘এখন নতুন টেকনিক হয়েছে, কেন কাজটা করছ না বললে অন্য পার্টিতে চলে যাব, যে চলে যায় যাক,’ দুর্গাপুরের মেয়রকে মেয়রকে নিশানা করে কাকে বার্তা মমতার

‘এখন নতুন টেকনিক হয়েছে, কেন কাজ করছ না বললেই অন্য পার্টিতে চলে যাব..’, দুর্গাপুর পুরসভার ‘পারফর্মেন্স রিপোর্ট’ খতিয়ে দেখে এভাবেই অসন্তোষ প্রকাশ করলেন মুখ্য মন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। শুধু তাই নয়, বৃহস্পতিবার নবান্নে প্রশাসনিক পর্যালোচনা বৈঠক থেকেই দুর্গাপুরের মেয়র দিলীপ অগস্তিকে সরিয়ে দেওয়ারও নির্দেশ দেন তিনি।
বৈঠকে রাজ্যের পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিমের কাছে দুর্গাপুর পুরসভার রিপোর্ট কেন খারাপ তা জানতে চান মুখ্য মন্ত্রী। জিজ্ঞেস করেন কী করা উচিত? এরপর পুরমন্ত্রীকে বলতে শোনা যায়, ‘মেয়র কাজ করেন না’। যা শুনে মুখ্যমন্ত্রী নির্দেশ দেন, তা হলে পুরসভার বৈঠক ডেকে নতুন কাউকে মেয়র করা হোক। তিনি বলেন, নিজেও দুর্গাপুর পুরসভার মেয়রকে এ নিয়ে কয়েকবার বলেছেন। কিন্তু কাজ হয়নি। মুখ্য মন্ত্রীর কথায়, উনি ভালো মানুষ, কিন্তু কাজের বেলা গুড ফর নাথিং হলে তো কিছু করার নেই। এরপরেই আরও এক তাৎপর্যপূর্ণ মন্তব্য করেন তৃণমূল নেত্রী। বলেন, ‘এখন আবার নতুন টেকনিক হয়েছে, কেন কাজটা করছ না বললে অন্য পার্টিতে চলে যাব… যাক, যে চলে যায় যাক।’
প্রসঙ্গত, কিছুদিন ধরে রাজ্যের মন্ত্রী তথা তৃণমূলের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ নেতা শুভেন্দু অধিকারীকে নিয়ে কৌতূহলের অন্ত নেই। বিভিন্ন জনসভায় তাঁর ইঙ্গিতপূর্ণ মন্তব্যে অনেকেই দলবদলের সম্ভাবনা দেখছেন। এই প্রেক্ষিতে দুর্গাপুর পুরসভার মেয়রকে নিয়ে মুখ্য মন্ত্রীর এই মন্তব্য যথেষ্ট ইঙ্গিতবাহী বলে মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল।
অন্যদিকে, যে দুর্গাপুর পুরসভার মেয়রের কাজ নিয়ে মমতা অসন্তোষ প্রকাশ করলেন, সেই পুরসভা পরিচালনার নানা বিষয় ও সিদ্ধান্ত নিয়ে দুর্গাপুর পুরসভার তৃণমূল কাউন্সিলরদের একাংশের সঙ্গে মেয়রের ‘দ্বন্দ্ব’ বারবার প্রকাশ্যে এসেছে। ফেব্রুয়ারিতে দুর্গাপুরে প্রশাসনিক বৈঠকে মেয়রকে সতর্ক করে দিয়ে প্রশাসনিক দক্ষতাকে কাজে লাগিয়ে মানুষের জন্য কাজ করার পরামর্শ দিয়েছিলেন মমতা। তবে এবার দিলীপ অগস্তি দুর্গাপুর পুরসভার মেয়র পদ থেকে সরিয়ে দেওয়ার নির্দেশ দিলেন রুষ্ট মুখ্য মন্ত্রী।

Comments
Loading...