কাশ্মীরে রাজ্যের ৫ শ্রমিকের খুনের ঘটনায় উচ্চ পর্যায়ের তদন্তের দাবি মমতার, মৃতদের পরিবারকে ৫ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণের ঘোষণা

‘পূর্ব পরিকল্পনা মাফিক কাশ্মীরে শ্রমিকদের নির্মমভাবে হত্যা করা হয়েছে, গোটা ঘটনায় আমরা হতবাক।’ কাশ্মীরের কুলগামে জঙ্গি হানায় ৫ বাঙালি শ্রমিকের নিহতের ঘটনায় পুঙ্খনাপুঙ্খ তদন্তের আর্জি জানিয়ে কেন্দ্রকে আক্রমণ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের।
মঙ্গলবার কুলগামের কটরাসু গ্রামে জঙ্গি হামলায় নিহত হন মুর্শিদাবাদের বাসিন্দা শেখ কামরুদ্দিন, শেখ মহম্মদ রফিক, শেখ মুরসুলিন, শেখ নিজামুদ্দিন ও মহম্মদ রফিক শেখ। এই ঘটনায় আগে গভীর শোকপ্রকাশ করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মৃতদের পরিবারকে আর্থিক সহায়তা করার কথা ঘোষণা করেন তিনি।
এবার এই ঘটনার প্রেক্ষিতে বুধবার কার্যত মোদী সরকারকেই নিশানা করলেন মুখ্যমন্ত্রী। বুধবার দুপুরে একের পর এক ট্যুইট বার্তায় বাংলার শ্রমিকদের নিহত হওয়ার ঘটনায় কেন্দ্রের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন মমতা। একটি ট্যুইটে লেখেন, গতকাল কাশ্মীরে রাজ্যের ৫ শ্রমিককে পূর্ব পরিকল্পনা মাফিক জঙ্গিরা খুন করেছে। তিনি লেখেন, গোটা ঘটনায় আমরা হতবাক। ট্যুইটারে মমতা আরও লেখেন, এখন উপত্যকায় কোনও রাজনৈতিক ক্রিয়াকলাপ হচ্ছে না। পুরো জম্মু-কাশ্মীরের আইন-শৃঙ্খলার দায়িত্ব রয়েছে কেন্দ্রীয় সরকারের হাতে। এই জঙ্গি হামলার জন্য পূর্ণাঙ্গ তদন্তের দাবি করছেন তিনি। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় লেখেন, প্রকৃত সত্যি যাতে সামনে আসে তার জন্য তদন্ত বিশেষ জরুরি। পুরো ঘটনার তথ্যের জন্য দক্ষিণবঙ্গের এডিজি সঞ্জয় সিংহ জম্মু-কাশ্মীর প্রশাসনের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছেন বলে জানান মুখ্যমন্ত্রী।
নিহত শ্রমিকদের পরিবারের সঙ্গে দেখা করার জন্য তৃণমূলের সাংসদ ও বিধায়কদের একটি প্রতিনিধি দল মুর্শিদাবাদ যায় বুধবার। পাশাপাশি, মৃতদের পরিবারকে ৫ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ ও অন্যান্য সহায়তা দেওয়ার কথাও ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী।
এদিকে মৃত শ্রমিকদের পরিবারকে সমবেদনা জানাতে মুর্শিদাবাদ বহালনগর যান লোকসভার কংগ্রেস নেতা তথা বহরমপুরের সাংসদ অধীর চৌধুরী। এ ব্যাপারে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের সঙ্গে কথা বলেন অধীর চৌধুরী।

 

Comments
Loading...