মানুষ ওদের বয়কট করেছে, ওরা আবার বিধানসভা বয়কট করবে কী! বিধানসভায় বিজেপিকে বিঁধলেন মমতা

সাম্প্রদায়িক উস্কানি দিয়ে কেউ যেন পার না পায়

ধ্বনিভোটে স্পিকার নির্বাচিত বিমান ব্যানার্জি। এই নিয়ে তৃতীয়বার বিমান ব্যানার্জি এই পদে বসলেন। এদিন স্পিকার নির্বাচনের পর বক্তব্য রাখতে গিয়ে বিজেপিকে নিশানা করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। বলেন, ডবল ইঞ্জিন করতে গিয়ে করোনা ছড়িয়েছে বিজেপি। তাঁর নির্দেশ, কেউ হিংসা ছড়ালে এফআইআর করুন। সাম্প্রদায়িক উস্কানি দিয়ে কেউ যেন পার না পায়। 

নব নির্বাচিত বিধায়কদের শপথ শেষে স্পিকার নির্বাচন। ধ্বনিভোটে নির্বাচিত বিমান ব্যানার্জি। তারপর বলতে উঠলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। আর বিধানসভায় এই দফায় নিজের প্রথম বক্তৃতায় মমতার ভাষণে উঠে এলো নির্বাচনী আইন সংস্কারের কথা। তাঁর অভিযোগ, বাংলার ভোটে কমিশনের সহায়তায় কয়েকটি জায়গায় রিগিং হয়েছে। নির্বাচন কমিশন বিজেপিকে সাহায্য না করলে ৩০ টি আসনও পেত না, দাবি মমতার। মুখ্যমন্ত্রী অভিযোগ করেন, বিজেপির কথায় স্রেফ চিরকুটে লিখে অফিসারদের বদলি করা হয়েছে। 

এদিন বাংলায় ভোট পরবর্তী হিংসা নিয়েও বিজেপিকে তুলোধোনা করেন মমতা ব্যানার্জি। তাঁর অভিযোগ, বাংলা দখলের নেশায় আমাদের বিরুদ্ধে পাইপ দিয়ে টাকার স্রোত বওয়ানো হয়েছে। মমতা ব্যানার্জির সুনির্দিষ্ট অভিযোগ, বাংলার বলে যে কটি ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ঘুরছে তার মধ্যে ৯৯% ফেক। বিজেপি বাংলাকে কালিমালিপ্ত করতে ফেক ভিডিও পোস্ট করছে বলেও দাবি করেন মমতা। মমতা ব্যানার্জি বলেন, আমি শুনলাম বিজেপি বিধানসভা বয়কট করেছে। ওদের তো মানুষ বয়কট করেছে, সেটা নিয়ে কী বলবে বিজেপি? মুখ্যমন্ত্রী বলেন, বিজেপি বাংলার ভোটের জন্য যা টাকা খরচ করেছে তা দিয়ে গোটা দেশের মানুষকে ফ্রিতে টিকা দেওয়া যেত। 

মানুষের ম্যান্ডেট বিজেপি মেনে নিতে পারছে না। অভিযোগ মমতার। বলেন, মানুষের রায় মেনে নিতে না পেরে বিজেপি ক্রমশ সংবিধান বিরোধিতার জায়গায় চলে যাচ্ছে বলেও দাবি করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। 

পুলিশ প্রশাসনকে তাঁর স্পষ্ট নির্দেশ, কাউকে হিংসা ছড়াতে দেখলেই এফআইআর করুন। সাম্প্রদায়িক উস্কানি দিলে পুলিশকে গ্রেফতার করতে নির্দেশ। মুখ্যমন্ত্রী বলেন, সাম্প্রদায়িক উস্কানি যদি আমি দেই আমাকে অ্যারেস্ট করুন। আমি বলে দিচ্ছি, যে উস্কানি দেবে তাকেই গ্রেফতার করবে পুলিশ।

Comments
Loading...