পরিযায়ী শ্রমিক ও অসংগঠিত ক্ষেত্রের কর্মীদের এককালীন ১০ হাজার টাকা অনুদান দিন, কেন্দ্রের কাছে দাবি মমতার

একদিকে ভাইরাসের ত্রাস অন্যদিকে পেটের চিন্তা, বেনজির সমস্যায় কোটি কোটি ভারতবাসী। অভিজিৎ বিনায়ক ব্যানার্জি, রঘুরাম রাজনের মতো অর্থনীতিবিদরা সরাসরি টাকা ট্রান্সফারের প্রস্তাব দিচ্ছেন মোদী সরকারকে। তাঁদের বক্তব্য, এমনতিতেই ঝিমিয়ে পড়া অর্থনীতিতে করোনার মার ভয়াবহ। এই পরিস্থিতিতে মানুষের হাতে সরাসরি টাকা তুলে দেওয়া ছাড়া রাস্তা নেই। এবার একই প্রস্তাব দিলেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জিও। ট্যুইট করে কেন্দ্রের কাছে আবেদন করলেন, এককালীন ১০ হাজার টাকা করে দেওয়া হোক পরিযায়ী শ্রমিক এবং অসংগঠিত ক্ষেত্রের কর্মীদের হাতে।

বুধবার সকাল সাড়ে ১১ টা নাগাদ ট্যুইট করে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, বর্তমান অতিমারির কারণে মানুষ অবর্ণনীয় অর্থ কষ্টের মধ্যে আছেন। আমি কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে আবেদন করছি, পরিযায়ী শ্রমিক এবং অসংগঠিত ক্ষেত্রের কর্মীদের এককালীন ১০ হাজার টাকা সহায়তা প্রদান করা হোক। পিএম কেয়ার ফান্ডের অংশও এতে ব্যবহার করা যেতে পারে।

করোনাভাইরাস এবং তা রুখতে মাসের পর মাস ধরে লকডাউন। দেশের অর্থনীতির কোমর ভেঙে দিয়েছে। এই অবস্থায় লক্ষ লক্ষ শ্রমিক দেশের শিল্প কারখানাগুলো ছেড়ে গ্রামের বাড়িতে ফিরছেন। সমীক্ষা বলছে, পুনরুজ্জীবনের আশা না থাকায় প্রতি ৩ টি ছোট ব্যবসার মধ্যে একটি চিরদিনের মতো বন্ধ করে দিতে বাধ্য হচ্ছেন ব্যবসায়ীরা। কেবলমাত্র এক মাসে কাজ হারিয়েছেন ১২ কোটি মানুষ। এই পরিস্থিতিতে তাবড় অর্থনীতিবিদের পাশাপাশি সরাসরি নগদ হস্তান্তরের দাবি তুললেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জিও।

Comments
Loading...