মমতা: কে এল, কে গেল তাতে দলের কিছু যায় আসে না, একুশে জয় নিশ্চিত

শুভেন্দু অধিকারীকে অনুসরণ করে গত তিন দিনে দল ছেড়েছেন একের পর এক তৃণমূল নেতা। তবে এই পরিস্থিতিতেও শুক্রবার কালীঘাটের কোর কমিটির বৈঠকে মাথা ঠান্ডা রেখে নেতৃত্বকে কাজ করে যাওয়ার পরামর্শ দিলেন তৃণমূল নেত্রী মমতা ব্যানার্জি।
সূত্রের খবর, বৈঠকে দলকে ইতিবাচক বার্তা দেন তিনি। পাশাপাশি দলত্যাগীদের নিয়ে তাঁর মন্তব্য,
কে এল, কে গেল তাতে দলের কিছু যায় আসে না। তৃণমূলে নেতা নয়, কর্মীরাই আসল সম্পদ বলে মন্তব্য করেন তিনি। তিনি আরও জানান, এখন যাঁরা দলবদল করছেন তাঁরা আসলে দলের বোঝা ছিল। আবার নেতা-কর্মীদের কোনও ক্ষোভ থেকে থাকলে বা কোনও কিছুতে সমস্যা হলে, তাঁদের সঙ্গে কথা বলার এবং বোঝানোর নির্দেশও দেন তিনি। কোর কমিটির বৈঠকে মমতা দৃঢ়ভাবে জানান একুশের ভোটে জয় নিশ্চিত। শুধু নেতা-কর্মী নির্বিশেষে সবাইকে একসঙ্গে ঝাঁপিয়ে পড়তে হবে। রাজ্যের উন্নয়নমূলক কাজ আরও বেশি করে মানুষের সামনে তুলে ধরতে হবে। জনসংযোগ বাড়াতে হবে। মানুষের কাছে গিয়ে তাঁদের সমস্যা জানতে হবে। চেষ্টা করতে হবে তার সমাধান করার।
সূত্রের খবর, তিনি আরও বলেছেন, আসন্ন ভোটে তৃণমূলের জিত নিয়ে কোনও সন্দেহ নেই ৷ এক ইঞ্চি জমি ছাড়া যাবে না বিরোধীদের৷ উন্নয়নকে অস্ত্র করে ভোটের ময়দানে ঝাঁপাতে হবে। মানুষ যে তাঁদের সঙ্গেই আছেন তার প্রমাণ হিসেবে ‘দুয়ারে সরকার’ প্রকল্পের সাফল্যের কথা তুলে ধরেন মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল নেত্রী।
শনিবার মেদিনীপুরের কলেজ মাঠে অমিত শাহের সভামঞ্চে শুভেন্দুর বিজেপিতে যোগ দেওয়ার ঘণ্টা বারো আগে মমতার কালীঘাটের এই বৈঠকে নজর ছিল রাজনৈতিক মহলের। দলের একের পর এক নেতা, বিধায়কের দলত্যাগ নিয়ে কোর কমিটিতে কী বার্তা দেন নেত্রী তা নিয়েও কৌতূহল ছিল। তবে মিটিংয়ে শুধু তৃণমূল নেত্রী নন, শীর্ষ নেতাদের প্রত্যেকে এটাই বলছেন যে, কেউ দল ছাড়লে তাকে নিয়ে দল কোনওভাবে চিন্তিত নয় ৷ তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চ্যাটার্জিও বলেন, অনেকেই যাবে। তাতে কিছু এসে যায় না। যারা দলের সৈনিক তারা দলেই থাকবে। এদিক-ওদিক গেলে বড় গাছের দু-চারটি পাতা খসে পড়ে গেলে কিছু এসে যায় না।

Comments
Loading...