এবারই ২০২১ বিধানসভা ভোটের আগে তৃণমূলের শেষ ২১ জুলাইয়ের কর্মসূচি। কোভিড পরবর্তী পরিস্থিতিতে একুশে জুলাইয়ের প্রস্তুতি বৈঠক থেকে শুক্রবার দলের বিধায়কদের উদ্দেশে স্পষ্ট বার্তা দিলেন তৃণমূল নেত্রী। একাধিক নেতা- মন্ত্রীর কাজে উষ্মা প্রকাশ করে মমতা ব্যানার্জি প্রশ্ন করেন, ‘আর ভোটে দাঁড়াতে চান না?’ সেই সঙ্গে দলের বিধায়কদের একাংশের নিষ্ক্রিয়তা নিয়েও ক্ষোভ প্রকাশ করেন।
করোনা ও আমফান পরিস্থিতিতে দলের বিধায়কদের একাংশের কাজ নিয়ে শুক্রবার মুখ্যমন্ত্রীর গলায় ছিল অসন্তোষের সুর। শুক্রবারের ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে হওয়া বৈঠকে তিনি স্পষ্ট জানান, বিভিন্ন ইস্যুতে একতরফা প্রচার চালিয়ে যাচ্ছে বিজেপি। সেখানে তাঁদের দলের প্রচার কোথায়? তাঁর ক্ষোভ, রাজ্য সরকার মানুষের জন্য বহু কাজ করলেও দলের বিধায়কেরা তা নিয়ে প্রচার করছেন না। এরপরেই রাজ্যের মন্ত্রী তথা পুরুলিয়ার বিধায়ক শান্তিরাম মাহাতোকে মমতার প্রশ্ন, গত তিন মাস তুমি কোথায় ছিলে? বাড়ি থেকেই তো বেরচ্ছ না। মমতা ব্যানার্জি বলেন, করোনা পরিস্থিতিতে সবাইকেই সুস্থ থাকতে হবে। কিন্তু মানুষের সঙ্গেও তো থাকতে হবে বিধায়ক ও নেতাদের। তারপরই বিধায়কদের উদ্দেশে তাঁর প্রশ্ন, ‘আপনারা কী করছেন? ভোটে দাঁড়াবেন না? ভোটে দাঁড়িয়ে জিততে চান না?’ কারা কারা ভোটে দাঁড়াতে চান, হাত তুলে জানাতে বলেন তৃণমূল নেত্রী। এক বিধায়ক হাত না তোলায়, তাঁকে মুখ্যমন্ত্রী প্রশ্ন করেন, ‘কী হল! আর ভোটে দাঁড়ানোর ইচ্ছে নেই?’
শুক্রবার আরও একবার মমতা জানিয়ে দেন, তৃণমূল ছেড়ে যাঁরা অন্য দলে যেতে চাইছেন, তাঁরা চলে যেতে পারেন।
করোনা পরিস্থিতিতে এবার একুশে জুলাইয়ের সমাবেশ আগের মতো হচ্ছে না। শুক্রবার দলীয় নেতা কর্মীদের উদ্দেশে মমতার বার্তা, একুশে জুলাই দুপুর ১ টায় বুথে বুথে তৃণমূল কর্মীরা জড়ো হবেন। দুপুর ২ টো থেকে ৩ টে পর্যন্ত বুথ থেকেই মমতার ভার্চুয়াল সভার বক্তৃতা শুনতে পাবেন নেতা-কর্মীরা।

ধারাবাহিকভাবে পাশে থাকার জন্য The Bengal Story র পাঠকদের ধন্যবাদ। আমরা যে ধরনের খবর করি, তা আরও ভালোভাবে করতে আপনাদের সাহায্য আমাদের উৎসাহিত করবে।

Login Support us