প্যান্ডেল খোলামেলা হলে জীবাণু বেরিয়ে যাবে, পুজো কমিটিগুলিকে বার্তা মুখ্যমন্ত্রীর, করোনার সেকেন্ড ফেজ আসতে পারে, নাম না করে দিলীপকে কটাক্ষ

করোনা পরিস্থিতিতে এবার দুর্গাপুজো কেমন হবে? পুজো যত এগিয়ে আসছে ততই সেই প্রশ্ন উঠছে। কিছুদিন আগে এ নিয়ে ভুয়ো সরকারি নির্দেশিকা সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়েছিল। এখনই এই বিষয়ে কোনও সিদ্ধান্ত নেয়নি রাজ্য সরকার। তবে সোমবার নবান্নে গ্লোবাল অ্যাডভাইজারি বোর্ডের সঙ্গে বৈঠকের পর সাংবাদিক বৈঠক থেকে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “পুজো কমিটিগুলিকে অনুরোধ করব খোলামেলা প্যান্ডেল করতে। কারণ অনেকেই অঞ্জলি দিতে আসেন। তাতে ভিড় বাড়বে। প্যান্ডেলের একাংশ খোলা থাকলে হাওয়া-বাতাস বইবে। জীবাণু থাকলে তা বেরিয়ে যাবে। যা প্যান্ডেলে ভিতরে থাকা একটা দুটো ভেন্টিলেটর দিয়ে বেরনো সম্ভব নয়।”

গ্লোবাল অ্যাডভাইজারি বোর্ডের এই পরামর্শ গ্রহণ করে পুজো কমিটিগুলির কাছেও আবেদন জানানো হবে বলে জানান মমতা। আগামী ২৫ সেপ্টেম্বর পুজো কমিটির সদস্যদের সঙ্গে বৈঠকে করোনা আবহে দুর্গাপুজোর বিধিনিষেধ সম্পর্কিত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।

কয়েকদিন আগেই বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ তোপ দেগেছিলেন করোনা চলে গিয়েছে বলে। রাজ্যে বিজেপিকে আটকে রাখার জন্য লকডাউন করছে তৃণমূল সরকার। এদিন নাম না করে দিলীপ ঘোষকে কটাক্ষ করে মমতা বলেন, যাঁরা বলছেন করোনা চলে গিয়েছে, তাঁদের বোঝা উচিত একটা ভাইরাস এত সহজে যায় না। করোনার সেকেন্ড ফেজ আসতে পারে। তার জন্য সবাইকে প্রস্তুত থাকতে হবে এবং দূরত্ব বিধি, পরিচ্ছন্নতা ইত্যাদি করোনা থেকে বাঁচার উপায়গুলো মেনে যেতে হবে।

হিন্দি দিবস উপলক্ষ্যে বাংলায় হিন্দি সাহিত্য ও সংস্কৃতি রক্ষায় হিন্দি অ্যাকাডেমির আরও গুরুত্ববৃদ্ধির কথা ঘোষণা করেন মমতা। সেই সঙ্গে দলিত সাহিত্য ও সংস্কৃতি রক্ষায় দলিত সাহিত্য অ্যাকাডেমি তৈরির কথা ঘোষণা করেছেন তিনি। সংশ্লিষ্ট কমিটির চেয়ারম্যান হিসেবে সাহিত্যিক মনোরঞ্জন ব্যাপারীর নাম প্রস্তাব করেন মুখ্যমন্ত্রী। মমতার কথায়, বাংলা সমস্ত ভাষাভাষী ও সংস্কৃতির মানুষের কদর করে। ভাষা, ধর্ম ও বর্ণের সমন্বয় রক্ষা করে কাজ করে যাবে তাঁর সরকার, বলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি।

Comments
Loading...