মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়: কাশ্মীর নিয়ে অসংবেদনশীল মন্তব্য করা থেকে বিরত থাকুন প্রশাসনের শীর্ষ কর্তারা

জম্মু-কাশ্মীরের মানুষকে নিয়ে অসংবেদনশীল এবং আলটপকা মন্তব্য করা থেকে বিরত থাকুন, সোশ্যাল মিডিয়ায় আবেদন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের।
গত ৫ ই অগাস্ট জম্মু-কাশ্মীরের উপর থেকে বিশেষ মর্যাদা প্রত্যাহার করে নিয়েছে কেন্দ্র, পাশাপাশি জম্মু-কাশ্মীর রাজ্যকে ভেঙে দুটি পৃথক কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল তৈরির সিদ্ধান্তও নেওয়া হয়েছে। যা নিয়ে দেশজুড়ে চলছে আলোচনার পর্ব। এই প্রেক্ষিতে কাশ্মীর নিয়ে কুরুচিকর মন্তব্যের যেন বান ডেকেছে। বিজেপির নেতা থেকে শুরু করে বিজেপি শাসিত প্রদেশের সত্তোরোর্ধ মুখ্যমন্ত্রী, কাশ্মীরের মেয়েদের নিয়ে একের পর এক আপত্তিকর এবং নিম্ন রুচির মন্তব্য করে চলেছেন। এই অবস্থায়, ট্যুইট করলেন বাংলার প্রথম মহিলা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ট্যুইটে তাঁদেরকে সতর্ক হওয়ার আবেদন রাখলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

শনিবার দুপুর দেড়টা নাগাদ সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি পোস্টে মমতা লেখেন, যাঁরা তাঁর মতো প্রশাসনের শীর্ষস্তরে রয়েছেন, জম্মু-কাশ্মীরের মানুষকে নিয়ে তাঁরা যেন প্ররোচনামূলক মন্তব্য না করেন। তাতে উপত্যকার মানুষ যেমন আহত হন, তেমনি দেশের ভাবমূর্তিতেও আঘাত লাগে, বলে পোস্টে লেখেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

জম্মু-কাশ্মীর নিয়ে কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্তের পর উত্তর প্রদেশের বিজেপি বিধায়ক থেকে হরিয়ানার মুখ্যমন্ত্রী মন্তব্য করেছেন, এতে কাশ্মীরের ফর্সা মেয়েদের বিয়ে করতে সুবিধা হল। জম্মু-কাশ্মীর থেকে বিশেষ মর্যাদা সরিয়ে নেওয়ার পর এখন যে কেউ সেখানে জমি কিনে বসবাস করতে পারবেন বলে মন্তব্য করছেন কেউ কেউ। জম্মু-কাশ্মীর ভেঙে পৃথক কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল তৈরির পর যখন অঘোষিত কার্ফু জারি রয়েছে উপত্যকায়, তখন নেতাদের এরকম অসংবেদনশীল মন্তব্য উপত্যকা সহ দেশের ভাবমূর্তিতেই আঘাত হানে। কারও নাম না করে সোশ্যাল মিডিয়া পোস্টে ঠিক সেই ইঙ্গিতই করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

Comments
Loading...