ফেসবুকে মোদী বিরোধী বক্তব্য পোস্ট, এক বছরের জেল হল মণিপুরের সাংবাদিকের

সোশ্যাল মিডিয়ায় মোদী বিরোধী বক্তব্যের জন্য জেল হল এক সাংবাদিকের। মণিপুরের সাংবাদিক ৩৯ বছর বয়সী কিশোরচন্দ্র ওয়াংখেম নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে সম্প্রতি একটি ভিডিও আপলোড করেন, যেখানে মুখ্যমন্ত্রী এন বীরেন সিংহ ও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী সম্পর্কে ‘আপত্তিজনক’ মন্তব্য করেন তিনি।
ওই ভিডিওতে সাংবাদিক কিশোরচন্দ্র ওয়াংখেম মুখ্যমন্ত্রীকে ‘পাপেট’ বা পুতুল বলে তাঁর সরকার চালানোর ধরন নিয়ে সমালোচনা করেছিলেন। মণিপুরে আরএসএস ঝাঁসির রানি লক্ষ্মীবাঈয়ের জন্মদিবস পালনের এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছিল। সেই অনুষ্ঠানেরও সমালোচনা করেছিলেন সাংবাদিক। তাঁর মত ছিল, রাজপুত রানির সঙ্গে মণিপুরের কোনও সম্পর্ক নেই। তাঁকে নিয়ে স্রেফ রাজনীতি করার জন্য আরএসএস এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছিল। ওয়াকিবহাল মহলের মতে, ওই ভিডিওতে তিনি নাকি সাহস থাকলে তাঁকে গ্রেফতার করা হোক বলেও চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়েছিলেন।
এরপর, চলতি বছরের ২৭ শে নভেম্বর ৩৯ বছর বয়সী ওই সাংবাদিককে গ্রেফতার করে পুলিশ। দীর্ঘ প্রায় এক মাস পর বুধবার ন্যাশনাল সিকিউরিটি অ্যাক্ট অনুসারে ১২ মাসের জন্য তাঁকে জেল হেফাজতের নির্দেশ দেওয়া হয়।
মণিপুরের একটি বেসরকারি খবরের চ্যানেলে সাংবাদিক ছিলেন কিশোরচন্দ্র ওয়াংখেম। তবে ওই বিতর্কিত ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় আপলোড করার আগে চাকরি থেকে ইস্তফা দিয়েছিলেন তিনি। যদিও কিশোরচন্দ্রের গ্রেফতারের ঘটনার নিন্দা করেছে ইন্ডিয়ান জার্নালিস্টস ইউনিয়ন এবং প্রেস কাউন্সিল অব ইন্ডিয়া। তাঁর গ্রেফতারিতে সাংবাদিক বন্ধুদের পাশে পেয়েছেন কিশোরচন্দ্র।
অনেক মণিপুরবাসীও এই ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছেন। যে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভিডিও আপলোড করে কিশোরচন্দ্রের এই পরিণতি, সেখানেও তাঁর গ্রেফতারিতে সরকারের সমালোচনায় মুখর হয়েছেন নেটিজেনরা। ন্যাশনাল সিকিউরিটি অ্যাক্টকে রাজনৈতিক স্বার্থে ব্যবহার করা হচ্ছে বলেও কেউ কেউ নিন্দায় সরব হয়েছেন।
এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে সাংবাদিকের পরিবার আদালতের দ্বারস্থ হতে পারেন বলে সূত্রের খবর।

Comments
Loading...