২ দিন উৎপাদন বন্ধের ঘোষণা মারুতির, গাড়ি শিল্পে ভাটা চলছেই

গাড়ি শিল্পে সঙ্কট চরমে, মারুতি সুজুকির গুরুগ্রাম, মানেসর প্ল্যান্টে উৎপাদন বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিল দেশের বৃহত্তম গাড়ি নির্মাণকারী সংস্থা। গত এক দশকে এই প্রথম এমন সিদ্ধান্ত নিল মারুতি সুজুকি।
গত কয়েক মাস ধরে গাড়ি বাজারে চাহিদার অভাবের জেরে পর্যায়ক্রমে উৎপাদন বন্ধ রাখছে দেশের অটোমোবাইল সংস্থাগুলি। এই প্রেক্ষিতে আগামী ৭ ও ৯ ই সেপ্টেম্বর গাড়ি উৎপাদন বন্ধ রাখছে ভারতের বৃহত্তম গাড়ি নির্মাণকারী সংস্থা মারুতি সুজুকি।
মারুতির পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, হরিয়ানার গুরুগ্রাম ও মানেসরে আগামী ৭ ও ৯ ই সেপ্টেম্বর, যাত্রী পরিবাহী গাড়ি উৎপাদন বন্ধ রাখা হচ্ছে। এই দু’দিন সংস্থার ‘নো প্রোডাকশন ডে’ হিসেবে চিহ্নিত করা হচ্ছে।
মঙ্গলবার শেয়ার বাজারে ব্যাপক ধস নামে। মারুতি সুজুকির শেয়ার ২.৬ শতাংশ কমে ৫ হাজার ৯০০ টাকায় দাঁড়ায়। পাশাপাশি, গাড়ি বাজারে টানা মন্দার জেরে অগাস্ট মাসে প্রায় ৩৪ শতাংশ উৎপাদন কমিয়ে দিতে বাধ্য হয়েছে মারুতি সুজুকি। এদিকে, গত রবিবারই একটি বিবৃতিতে মারুতির পক্ষ থেকে জানানো হয়, অগাস্ট মাসে এক তৃতীয়াংশ গাড়ি বিক্রি কমে গিয়েছে। গত মাসে মারুতি সুইফট, সেলেরিও, ইগনিস, ডিজায়ার গাড়ির বিক্রি কমেছে ২৩.৯ শতাংশ। এছাড়া মারুতির মিনি কারের মধ্যে অল্টো, ওয়াগনার বিক্রির সংখ্যাও তাৎপর্যপূর্ণভাবে কমে গিয়েছে। গাড়ি রফতানির অবস্থাও তথৈবচ। এই প্রেক্ষিতে উৎপাদন স্থগিতের সিদ্ধান্ত নিল দেশের এক তৃতীয়াংশ গাড়ি নির্মাণকারী সংস্থা মারুতি সুজুকি।
২০১২ সাল থেকে ক্রমশ খারাপ হচ্ছে দেশের গাড়ির বাজার। জুলাই মাসে এক বিবৃতিতে মারুতি জানায়, গত ৭ বছর ধরে তাদের গাড়ি বিক্রি কমছে। চলতি বছরের জুলাই পর্যন্ত মারুতির মোট গাড়ি বিক্রির হার ৩৪ শতাংশ কমে গিয়েছে বলে জানিয়েছিল তারা। আর কেবলমাত্র জুলাই মাসেই মারুতির শেয়ার পড়েছে ৪০ শতাংশেরও বেশি। খরচের বহর কমাতে কিছুদিন আগে সংস্থার ৩ হাজার অস্থায়ী কর্মীকে ছাঁটাই করেছে মারুতি সুজুকি। এবার লোকসান মোকাবিলায় ফের গাড়ি উৎপাদন বন্ধ রাখছে মারুতি সুজুকি।

 

Comments
Loading...